লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের লিস্ট, lokkhi bhandar prokolpo



লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প বর্তমানে সবচেয়ে বেশি চর্চায় রয়েছে। যারা লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে ফর্ম ফিলাপ করেছেন তাদের নামে একটি লিস্ট তৈরি করা হয়েছে। সাধারণত এই সমস্ত প্রকল্প বা ভাতায় একটি লিস্ট তৈরি করা হয় এবং যাদেরকে টাকা দেবার যোগ্য বলে বিবেচনা করা হয় তাদের নাম সেই লিস্টের আওতায় আনা হয়। এবার আপনি কিভাবে বুঝবেন সেই লিস্টে আপনার নাম উঠেছে কিনা! সেই নিয়েই আজকের পোষ্ট।


গত কিছুদিন আগে দুয়ারে সরকারে লাখে লাখে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের ফর্ম জমা নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এই প্রকল্পের আওতায় আসলে আপনি প্রতিমাসে ৫০০ কিংবা ১০০০ টাকা করে পাবেন। কিন্তু সাধারণ মানুষ এই ব্যাপারটি নিয়ে অদ্ভুত চিন্তায় রয়েছে যে তাদের ফর্ম ঠিকমতো জমা হয়েছে কিনা, যদি সমস্ত ঠিক ঠাক থাকে তবে তারা কবে থেকে টাকা পাবে? 

এটি জানবার মূলত দুটি পদ্ধতি রয়েছে, প্রথম পদ্ধতিটি হলো এস এম এস,  আপনি যখন লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন পত্রটি জমা দেবেন তখন আপনার মোবাইলে একটি মেসেস আসবে, সেই মেসেসটির অর্থ আপনার আবেদনপত্রটি আমরা পেয়েছি। ঠিক তার পর আরো একটি এস এম এস আপনার কাছে আসবে যেখানে আপনার লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের আইডি পেয়ে যাবেন। আপনার কাছে যদি এই দুটি এস এম এস এসে থাকে তবে আপনি নিশ্চিত ভাবে ভেবে নিতে পারবেন যে আপনার নামটি লিস্টে তোলা হয়েছে।


দ্বিতীয় পদ্ধতিটি হলো ব্যাঙ্ক পাস বই আপডেট, এমন অনেক দেখা যাচ্ছে টাকা ঢুকছে কিন্তু এস এম এস আসেনি। আপনি যদি দুটো এস এম এস না পেয়ে থাকেন তবে সেপ্টেম্বরের শেষে ব্যাঙ্কে গিয়ে আপনার বইটি আপডেট করে দেখতে পারেন যদি দেখেন আপনার টাকা এখোনো আসেনি এবং এস এম‌ এস‌ও আসেনি তখন আপনি বিডিও অফিস বা পঞ্চায়েত অফিসে যোগাযোগ করতে পারেন।


• এরকম আরো খবর পেতে আজই যুক্ত হন আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে- LINK

• যে কোনো ধরনের স্কলারশিপ, চাকরি, ভ্রাতা, সরকারি প্রকল্প, প্রতিদিনের কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ও জেনারেল নলেজের আপডেট পেতে এখুনি সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যালেন – সাবস্ক্রাইব