আপনি কি এখনো আবাস যোজনার ঘর পাননি? তবে এই পোষ্টটি আপনার জন্য। চলুন দেখে নেওয়া যাক।
সবার প্রথমে যে কথাটি বলা উচিৎ সেটি হলো, মোট তিনটি আবাস যোজনায় টাকা দেওয়া হয়ে থাকে, 

ক) বাংলার বাড়ি প্রকল্পঃ- এই প্রকল্পের আন্ডারে ৩ লক্ষ ৪৮ হাজার টাকা দেওয়া হবে।

খ) স্নেহালয় প্রকল্পঃ- এই প্রকল্পের আন্ডারে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে।

গ) গীতাঞ্জলি প্রকল্পঃ- 
(১) ৭০ হাজার টাকা সাধারণ গ্রাম ও শহরের ক্ষেত্রে। 
(২) ৭৫ হাজার টাকা সুন্দরবন, পার্বত্য ও দুর্গম এলাকার ক্ষেত্রে।

এই সমস্ত প্রকল্পে আবেদন করবারও কিছু যোগ্যতা প্রয়োজন; চলুন সেগুলো দেখে নেওয়া যাক।


(ক) বাংলার বাড়ি প্রকল্পঃ- গরিব ও খেটে খাওয়া মানুষদের জন্য এই প্রকল্প। যারা যারা এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারবে, 

○ যে সমস্ত পরিবারের মাসিক আয় ১০ হাজার টাকার নীচে।
○ যে কোনো পুরুষ ও মহিলা এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবেন।
○ সংখ্যালঘু জাতি, তপশিলি জাতি ও জেনারেল কাস্টের মানুষেরা এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

★ আবেদন পদ্ধতিঃ- বাংলার বাড়ি প্রকল্পে আবেদন করতে হলে আপনাকে সরাসরি বিডিও অফিস ও পৌরসভায় গিয়ে ফর্ম সংগ্রহ করতে হবে। এবং ফর্ম পূরণ করে আবার বিডিও অফিস বা পৌরসভাতে জমা দিতে হবে।


খ) স্নেহালয় প্রকল্পঃ- সাধারণ মানুষদের জন্য এই প্রকল্প নিয়ে আসা হয়েছে। যারা যারা এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারবে, 

○ EWS বিভাগে থাকতে হবে।
○ পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
○ মাসিক আয় দশ হাজার টাকার কম হতে হবে।
○ ব্যাঙ্ক একাউন্ট থাকতে হবে।

★ আবেদন পদ্ধতিঃ- স্নেহালয় প্রকল্পে আবেদন করতে হলে আপনাকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট (wb.gov.in) এ গিয়ে আবেদন করতে হবে। অথবা হাউজিং ডিপার্টমেন্টের অফিশিয়াল সাইট ( wbhousing.gov.in) -এ গিয়েও আবেদন করতে পারেন।


গ) গীতাঞ্জলি প্রকল্পঃ- যাদের মাথার ওপর ছাদ নেই তাদের জন্য এই প্রকল্প। দুটি ধাপে ৩৫ হাজার করে ৭০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। যারা যারা এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারবে, 

○নিজের আইনি জটিলতা মুক্ত জমি থাকতে হবে। 
○মাসিক ইনকাম ৬ হাজার টাকার মধ্যে হতে হবে।
○পশ্চিমবঙ্গের সকল দরিদ্র মানুষ এই প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবে।
○যে ব্যাক্তির ঘর বাড়ি বন্যার কারনে ভেসে গিয়েসে সেই ব্যাক্তিও আবেদন করতে পারবে। 

★ আবেদন পদ্ধতিঃ- গীতাঞ্জলি প্রকল্পে অনলাইনে আবেদন করা যায় না, গ্রামের ক্ষেত্রে SDO, BDO বা পঞ্চায়েত অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করতে হবে। আর আপনি যদি শহরের বাসিন্দা হয়ে থাকেন তবে আপনাকে পৌরসভা অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করতে হবে।


• এরকম আরো খবর পেতে আজই যুক্ত হন আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে- LINK

• যে কোনো ধরনের স্কলারশিপ, চাকরি, ভ্রাতা, সরকারি প্রকল্প, প্রতিদিনের কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ও জেনারেল নলেজের আপডেট পেতে এখুনি সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যালেন – সাবস্ক্রাইব