How-to-start-clothes-business

সকলকে স্বাগত। আজ থেকে শুরু হলো আমাদের এই ব্যবসা-বানিজ্য সিরিজ। যে সিরিজে চাকরির বিকল্প ব্যবসা গুলি নিয়ে আলোচনা করা হবে। তাই যদি আপনি ব্যবসার প্রতি আগ্রহী হন তবে আমাদের সাইটের সঙ্গে জুড়ে থাকুন।

আজকের টপিক কাপড়ের ব্যবসা। কাপড়ের ব্যবসা কিকরে শুরু করবেন? এই ব্যবসায় লাভ কতটা? এই ব্যবসায় ঝুঁকি কতখানি সমস্ত কিছু নিয়েই আজকের আলোচনা থাকবে।

সবার প্রথমে এখানে যে পয়েন্টটি আসে সেটা হলো চাহিদা। স্বাভাবিকভাবে যে জিনিসের চাহিদা বেশি রয়েছে সেই জিনিসগুলির ব্যবসা করে লাভবান বেশি হওয়া যায়। উদাহরণ স্বরুপ আমাদের কাপড়ের ব্যাবসা। কাপড়ের চাহিদা দিন দিন বাড়বে, তবে এটাও মাথায় রাখতে হবে যে শুধু চাহিদা আছে বলেই সেই ব্যবসা শুরু করবেন না, ব্যবসা শুরু করুন নিজের ভালোলাগা দেখে। অর্থাৎ কোন ব্যবসাটাকে আপনি বেশি ভালোবাসেন। বা বেশি মনোযোগ দিতে পারবেন।

কাপড়ের ব্যবসা শুরু করবেন কিকরে? কাপড়ের ব্যবসা শুরু করতে কিছু শর্তকে মাথায রাখতে হবে,


প্রথমঃ- আগে আপনাকে বিভিন্ন কাপড়ের সমন্ধে জ্ঞান অর্জন করতে হবে। কোন কাপড় কেমন, কোন কাপড় বাজারে কেমন চলছে এটি আপনি দু’চারদিন সময় নিয়ে নিজের শহরের বা গ্রামের বিভিন্ন দোকানে ঘুরে খোঁজ নিতে পারবেন।


দ্বিতীয়ঃ- মূলধন, কাপড়ের ব্যবসা বা যে কোনো ব্যবসায় যে টপিকটি সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ সেটি হলো মূলধন। আপনার কাছে যদি বেশ ভালো পরিমাণ মূলধন না থাকে তবে এই ব্যবসা থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন।


তৃতীয়ঃ- এলাকা, আপনি কোথায় কাপড়ের দোকান দেবেন সেটাও একটা বড়ো সরো ভূমিকা গ্রহন করে। আপনি যদি এমন কোনো জায়গা বেঁছে নেন যেখানে বর্তমানে বেশ কিছু কাপড়ের দোকান রয়েছে তবে আপনাকে দাঁড়াতে বেশ খানিকটা বেগ পেতে হবে। এর চাইতে এমন কোনো জায়গা বেছে নিন যেখানে তেমন একটা কাপড়ের দোকান নেই।

কাপড় আনবেন কোথা থেকেঃ- এই পোষ্টের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন, কাপড় আনবেন কোথা থেকে? আপনি ব্যবসা শুরুর প্রথমে ঠিক করে নিন আপনি আপনার দোকানে ঠিক কি কি রাখবেন, তারপর কলকাতা বা শান্তিপুর থেকে আপনি হোলসেল দামে কাপড় সংগ্রহ করে আনতে পারেন


পরবর্তী পর্বে আমরা কলকাতার এমন দশটি হোলসেল মার্কেট নিযে আলোচনা করবো যেখান থেকে খুব সস্তায় আপনারা কাপড় সংগ্রহ করতে পারবেন।

কাপড়ের ব্যবসার ঝুঁকিঃ- আপনাকে একটা কথা মাথায রাখতে হবে যে, আপনি যে পরিমান কাপড় প্রথমে আপনার দোকানে ওঠাবেন তার ৫০% মানে অর্ধেক কাপড় আপনার কাছে রয়ে যাবে। যা সেই মুহুর্তে বিক্রী হবে না। আপনি আবার যখন নতুন কাপড় আনবেন তখন হয়তো এই ৫০% শেষ হয়ে যাবে কিন্তু আরো নতুন একটা অংশ তৈরি হবে যা আপনার দোকানে পরে থাকবে। মোদ্দা কথা এই ৫০% এর টাকা আপনাকে প্রথমেই কাপড়ের ব্যবসায় বিসর্জন দিতে হবে।

কাপড়ের ব্যবসায় লাভঃ- সেভাবে দেখতে গেলে কাপড়ের ব্যবসায় লাভের পরিমান দ্বিগুন বা তিনগুন। আপনি একটি ভালো জিন্স ৫০০ টাকা দিয়ে কিনে আনলে সেটা আপনি ২ হাজার বা আড়াই হাজার টাকা দিয়ে অনা আসে বিক্রি করতে পারবেন। এই ব্যবসা ভালোভাবে দাঁড়া করাতে পারলে মাসে লক্ষাধিক আয় কোনো ব্যপার নয়।