important-questions-and-answers-about-Oasis-scholarship

নমস্কার বন্ধুরা আজ আমরা নিয়ে এসেছি ওয়েসিস স্কলারশিপ বা SC-ST-OBC Scholarship এর ৫ টি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও তার উত্তর। কিছুদিন ধরেই সকলে এই স্কলারশিপের কিছু প্রশ্ন নিয়ে চিন্তার মুখে আছেন। আজ সেই প্রশ্ন গুলোরই উত্তর দেবার চেষ্টা করবো। চলুন তবে শুরু করা যাক।

প্রশ্ন ১- ওয়েসিস স্কলারশিপে ৪০% এবং ৬০% এর ব্যপারটা কি?
সমস্ত চাকরির খবর সবার আগে পেতে ডানদিকের নীচে থাকা টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হন। এবছরের নতুন নিয়ম অনুযায়ী শুধুমাত্র SC ক্যাটাগরির ছেলে-মেয়েরা, যারা ওয়েসিস স্কলারশিপে আবেদন করেছেন তাদের জন্যই এই নিয়মটি বেরিয়েছে। এই নিয়ম অনুযায়ী আপনি ওয়েসিস স্কলারশিপ থেকে যে পরিমান টাকা পেতেন এবার‌ও সেই পরিমানই পাবেন। কিন্তু টাকাটি দুবারে দেওয়া হবে প্রথমবার ৪০% এবং দ্বিতীয়বার ৬০%।

প্রশ্ন ২- আমি প্রথমেই ৬০% টাকা পেয়েছি! তবে কি আমি ৪০% টাকা পাব না?
উত্তর:- শুধু আপনি নয় পশ্চিমবঙ্গের প্রচুর ছেলে-মেয়েকে প্রথমে ৬০% টাকা দেওয়া হয়েছে। এতে ভয়ের কোনো কারন নেই। আপনার টাকা আপনি দুভাগে পাবেন সেটা ৪০% আগে ৬০% পরেও হতে পারে বা ৬০% আগে ৪০% পরেও হতে পারে। অনেকেরই ৬০% টাকা ঢোকার কিছুদিন পর ৪০% টাকা ঢুকছে।

প্রশ্ন ৩- আমার লট নাম্বার দিয়ে দিয়েছে আমি কবে টাকা পাব?
উত্তর- আপনার লট নাম্বার দিয়ে দিয়েছে এর অর্থ আপনাকে টাকা পাঠানোর জন্য সিলেক্ট করা হয়েছে। আপনি লট নাম্বার পাবার পর ১৫ দিন অপেক্ষা করুন। এই ১৫ দিনের মধ্যেই আপনি টাকা পেয়ে যাবেন।

প্রশ্ন ৪- আমার মোবাইলে টাকা আসার মেসেস এসেছে কিন্তু আমার অ্যাকাউন্টে এখনো টাকা কেডিট হয়নি। কি করবো?
উত্তর:- আপনার কিছু করার প্রয়োজন নেই, আপনি ৪৮ ঘন্টা অপেক্ষা করুন। মেসেস চলে এসেছে এর অর্থ আপনার টাকা আপনার ব্যাঙ্কের উদ্দেশ্যে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে সেই টাকা আপনার অ্যাকাউন্টে ক্রেডিট হয়ে যাবে।

প্রশ্ন ৫ – ওয়েসিস স্কলারশিপ ও স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ কি আর একই সঙ্গে করা যাবে?
উত্তর:- এতদিন বহু ছেলে-মেয়ে ওয়েসিস স্কলারশিপস্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপে একই সঙ্গে আবেদন করেছে এবং টাকাও পেয়েছে; এবছরও তাই করেছে। কিন্তু সরকারি নিয়ম অনুযায়ী আপনি যদি একটি সরকারি স্কলারশিপে আবেদন করেন তবে দ্বিতীয় কোনো সরকারি স্কলারশিপে আবেদন করতে পারবেন না। কিছুদিন আগে সরকার একটি মিটিংয়ে জানিয়েছিল তারা একটি সফটওয়্যার তৈরি করার চেষ্টা করছেন যার মধ্যে দিয়ে যে কোনো ছাত্র-ছাত্রীর আধার কার্ড নাম্বার টাইপ করলেই সেই ছাত্র বা ছাত্রী কোন কোন স্কলারশিপে আবেদন করেছে তা জানা যাবে। যদি আগামী বছরের আগে এই সফটওয়্যারটি তৈরি হয়ে যায় তবে হয়তো পরের বছর থেকে যে কোনো একটি স্কলারশিপেই আবেদন করা যাবে। তারসঙ্গে যে কোনো বেসরকারি স্কলারশিপে আবেদন করা যেতে পারে।

• অফিসিয়াল ওয়েবসাইট:- Link

সমস্ত খবর সবার আগে পেতে ডানদিকের নীচে থাকা টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হন।