Starting-of-application-of-Krishak-Bandhu-prokolpo

ফিনিক্স বাংলায় সকলকে স্বাগত। আজ আমরা আলোচনা করবো কৃষকবন্ধু প্রকল্পের নতুন আপডেট নিয়ে। চলেন তবে শুরু করা যাক।

কৃষকবন্ধু প্রকল্প হলো পশ্চিমবঙ্গ সরকারের একটি বীমা প্রকল্প , যাতে কৃষক এবং ভাগচাষীরা ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বীমা পেয়ে যাবেন। এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হলো কৃষকদের ব্যাংকে কিছু টাকা সরাসরি সাহায্য দেওয়া, যাতে কৃষকরা তাদের প্রয়োজনীয় সার, বীজ, কীটনাশক কিনে ভালোমতো চাষবাস করতে পারেন। এই প্রকল্পে কৃষকরা বার্ষিক ১০ হাজার টাকা পাবেন।

ইতিমধ্যেই বিভিন্ন জায়গায় নতুন করে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প চালু হয়ে গিয়েছে। আপনারা যারা নতুন করে কৃষকবন্ধু প্রকল্প ২০২২ এ আবেদন করতে চান তারা ফেব্রুয়ারি মাসের দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে গিয়ে আবেদন করতে পারবেন। ইতিমধ্যেই কৃষকবন্ধু প্রকল্পে আবেদন করবার জন্য নতুন একটি ফর্ম বের করা হয়েছে যা আগের ফর্মের তুলনায় কিছুটা ভিন্ন।

এই ফর্মটি আপনি আপনার দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে পেয়ে যাবেন অথবা আপনাদের সুবিধার জন্য পোষ্টের নীচে ফর্মের লিঙ্ক দেওয়া থাকবে। ফর্মটি ডাউনলোড করে সঠিক ভাবে পূরন করে ও সমস্ত ডকুমেন্টস যুক্ত করে আপনার পাড়ার দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে জমা দিতে হবে।

এই ফর্মের প্রথমেই নিজের নাম লিখতে হবে বড় হাতের ইংরেজিতে, তারপর জমির দলিলে যেভাবে লেখা আছে সেই ভাবে বাংলায় আবার নাম লিখতে হবে। এরপর বাসস্থানের ঠিকানা, গ্রাম, গ্রাম পঞ্চায়েত, পোস্ট অফিস, ব্লক, থানা, জেলার নাম এইসব তথ্য বাংলা অথবা ইংরেজীতে পূরণ করতে হবে। এরপর পিতা/স্বামীর নাম লিখতে হবে। এরপর আবেদনকারীর জন্মতারিখ, বয়স (১/১/২০২২ এর পরিপ্রেক্ষিতে), লিঙ্গ, শ্রেণী অথবা কাস্ট, কৃষকের ধরণ( মালিক/ বর্গাদার/ পাট্টাদার), আবেদনকারী কৃষকের মোবাইল নাম্বার ( যে মোবাইল নাম্বারটি ব্যাংক একাউন্ট ও আধার কার্ডের সঙ্গে লিংকড), বিকল্প মোবাইল নাম্বার, আধার কার্ড নাম্বার, ভোটার কার্ড নাম্বার এইসব তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে।

এর পরেই কৃষিজমির তথ্য পূরণ করতে হবে। যার মধ্যে ক্রমিক নম্বর, জেলা, ব্লক, মৌজা, জে. এল. নং, খতিয়ান নং, চাষযোগ্য জমির পরিমাণ (একরে), মোট চাষযোগ্য জমির পরিমাণ (একরে) দিয়ে পূরণ করতে হবে।

এরপর পূরণ করতে হবে ব্যাংকের তথ্য। ব্যাংক অ্যাকাউন্ট অনুযায়ী আবেদনকারীর নাম (ইংরেজিতে), অ্যাকাউন্ট নাম্বার, IFSC কোড, ব্যাংকের নাম, ব্রাঞ্চের নাম, অ্যাকাউন্টের ধরন (সেভিংস/ কারেন্ট) এসব তথ্য পূরণ করতে হবে। ব্যাংকের সংযুক্তি নথি, ব্যাংকের পাস বই(ফটো সহ)/ বাতিল চেক টিক চিহ্ন দিতে হবে।

এরপর পূরণ করতে হবে নমিনির তথ্য। আবেদনকারী কাকে নমিনি হিসেবে রাখতে চাইছে তার নাম, নমিনির সঙ্গে আবেদনকারীর সম্পর্ক, নমিনির পিতা/স্বামীর নাম, নমিনির জন্মতারিখ, বয়স, নমিনির অভিভাবকের নাম ( নমিনির বয়স ১৮ বছরের নীচে হলে) এসব পূরণ করতে হবে।

এরপর আবেদন কবে করা হচ্ছে অর্থাৎ ফরমটি পূরণ করে কবে জমা দেওয়া হচ্ছে সেই দিনের তারিখ এবং আবেদনকারীর স্বাক্ষর বা টিপসই দিয়ে পূরণ করতে হবে।

এরপর প্রাপ্তিস্বীকার জায়গাটি অফিস থেকে পূরণ করে তার রিসিভ কপি আবেদনকারীকে দিয়ে দেওয়া হবে।

• কৃষক বন্ধু প্রকল্পের ফর্ম এর সঙ্গে যে যে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলি লাগবে সেগুলো হলো-
(১) ভোটার কার্ডের জেরক্স,
(২) আধার কার্ডের জেরক্স,
(৩) ব্যাংক অ্যাকাউন্টের পাসব‌ইয়ের জেরক্স,
(৪) জমির রেকর্ডের জেরক্স,
(৫) ওয়ারিশ সার্টিফিকেট।

কৃষকবন্ধু প্রকল্পের নতুন ফর্ম:- Link

সমস্ত খবর সবার আগে পেতে ডানদিকের নীচে থাকা টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হন।