Big-announcement-of-Food-Department-about-ration-card

নমস্কার বন্ধুরা, আজ আপনাদের সঙ্গে আলোচনা করে নিতে চলেছি খাদ্য দপ্তরের একটি ঘোষনা নিয়ে, কি সেই ঘোষনা, সেটা জানবার আগে আপনাদের জানিয়ে রাখতে চাই রেশন কার্ড নিয়ে যে কোনো সমস্যার সমাধান পেতে আজই যুক্ত হন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে- Link

গুরুত্বপূর্ণ ঘোষনাটি হলো, আপনার কাছে যদি নন ডিজিটাল রেশন কার্ড থেকে থাকে বা পেপার রেশন কার্ড থেকে থাকে তবে আপনি এতদিন রেশন দোকান থেকে ১৫০ মিলিলিটার কেরোসিন তেল পেতেন। কিন্তু খাদ্য দপ্তরের নতুন ঘোষনা অনুযায়ী আগামী জুন মাসের ১ তারিখ থেকে এই ধরনের রেশন কার্ড থাকলে আপনি আর কোনো ধরনের রেশন বা কেরোসিন তেল পাবেন না।

আপনারা জানলে অবাক হবেন এরকম নন ডিজিটাল রেশন কার্ড বা পেপার রেশন কার্ড ধারকের সংখ্যা পশ্চিমবঙ্গে বর্তমানে সাড়ে ১৭ লক্ষ। এখানে একটি কথা বলে রাখা উচিৎ শুধুমাত্র দার্জিলিং এর কিছু অঞ্চল বাদে গোটা পশ্চিমবঙ্গে পয়লা জুল থেকে নন ডিজিটাল রেশন কার্ড অচল হয়ে যাবে। দার্জিলিংএ এই মুহুর্তে ডিজিটাল রেশন কার্ড দেওয়া শুরু হয়েছে তাই সেই অঞ্চলকে এই গন্ডির বাইরে রাখা হয়েছে। দার্জিলিং বাদ দিলে প্রায় ১৬ লক্ষ রেশন কার্ড পুরোপুরি ভাবে অচল হয়ে যাবে পয়লা জুন থেকে।

খাদ্যদপ্তর থেকে জানানো হয়েছে যারা এখনো নন ডিজিটাল রেশন কার্ড বা পেপার রেশন কার্ড ব্যবহার করে তারা যেন যতদ্রুত সম্ভব ডিজিটাল রেশন কার্ড তৈরি করে নেয় কারন নন ডিজিটাল রেশন কার্ডে কেরোসিন পাওয়া যায় ১৫০ মিলিলিটার, সেখানে ডিজিটাল রেশন কার্ড থাকলে কেরোসিন পাওয়া যাবে ৫০০ মিলিলিটার এবং তার সঙ্গেই পাওয়া যাবে অনান্য খাদ্যশষ্য। অর্থাৎ গ্রাহকরা এটি করলে তাদেরই বেশি লাভ।