Details-update-about-KYC-of-Krishak-Bandhu-Prakalpa

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কৃষি দপ্তর থেকে একটি নতুন বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলা হয়েছে যে, কৃষক বন্ধু প্রকল্পে আধার সংযুক্তিকরণ অর্থাৎ KYC করতে হবে। কাদের কাদের এই KYC করতে হবে, কোথায় করতে হবে, অনলাইনে নাকি অফলাইনে করতে হবে, কি কি ডকুমেন্টস লাগবে এই সমস্ত কিছু বিস্তারিত আলোচনা করবো আজকের এই পোস্টে। চলুন জেনে নেওয়া যাক।

• কৃষক বন্ধু প্রকল্পের জন্য যে KYC করতে বলা হয়েছে, এই KYC কাদের কাদের করতে হবে?

যেসব কৃষকরা কৃষক বন্ধু প্রকল্পের জন্য আবেদন করেছিলেন, তাদের আবেদনের স্ট্যাটাস দেখতে krishakbandhu.net এই ওয়েবসাইটটিতে আসতে হবে। এখানে নথিভুক্ত কৃষকের তথ্য অপশনে ক্লিক করতে হবে। এরপর কৃষকের ভোটার কার্ডের নাম্বার দিয়ে সার্চ করতে হবে। যদি দেখা যায়, কৃষকের অ্যাপ্লিকেশনের স্ট্যাটাসে তার অ্যাপ্লিকেশনটি অ্যাপ্রুভ হয়ে গিয়েছে তাহলে অবশ্যই KYC করাতে হবে। কিন্তু যদি কোন কৃষকের ক্ষেত্রে অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাস অ্যাপ্রুভ না হয় অর্থাৎ তাঁর কোনো রেকর্ড শো না করে, তবে সেই কৃষকের ক্ষেত্রে তখনই KYC করানোর প্রয়োজন নেই।

• কৃষক বন্ধু প্রকল্পের জন্য KYC করতে কি কি ডকুমেন্টস লাগবে?

(১) নথিভূক্ত কৃষকের ভোটার কার্ড।
(২) আধার কার্ড।
(৩) জমির সাম্প্রতিক রেকর্ড কপি (২০২১/২০২২)।
(৪) ব্যাংকের পাস বই এর আসল ও ফটোকপি।

• কৃষক বন্ধু প্রকল্পে KYC করার ফর্ম কোথায় পাওয়া যাবে?

কৃষক বন্ধু প্রকল্পে KYC করার জন্য একটি সেল্ফ ডিক্লিয়ারেশন ফর্ম জমা দিতে হবে। যেটি সংশ্লিষ্ট ব্লক অফিসের কৃষি দপ্তর থেকে সংগ্রহ করতে হবে। এই সেল্ফ ডিক্লিয়ারেশন ফর্মটি পূরণ করে তার সঙ্গে সমস্ত প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সংযুক্ত করে ব্লক অফিসের কৃষি দপ্তরে জমা করতে হবে।

• কৃষক বন্ধু প্রকল্পের জন্য KYC কোথায় করতে হবে?

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের জন্য KYC করতে সংশ্লিষ্ট ব্লকের কৃষি দপ্তরে যেতে হবে।

• কৃষক বন্ধু প্রকল্পের জন্য KYC অনলাইনে করা যাবে কিনা?

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কৃষি দপ্তরের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট krishakbandhu.net এ গিয়ে দেখা যায় যে এখানে KYC করার কোনো অপশন নেই। অর্থাৎ এখনো পর্যন্ত কৃষক বন্ধু প্রকল্পের জন্য KYC অনলাইনে করা যায় না।

• অফিসিয়াল ওয়েবসাইট:- Link

পোষ্টটি ভালোলাগলে বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করুন এবং এরকম আর‌ও তথ্য পেতে আজই যুক্ত হন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে