Swasthya-Sathi-Card-Important-Update

প্রান্তিক স্তরের মানুষদের অর্থ এর কারনেই তাদের চিকিৎসা সঠিকভাবে হয় না । আর সে কারণেই পশ্চিমবঙ্গের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী গত বছরেই স্বাস্থ্যসাথী (Swasthya Sathi) নামক একটি নতুন প্রকল্প‌ চালু করেন ।

প্রকল্পের সুবিধা: এই প্রকল্পের একটি বড় উপকারিতা হলো এই স্বাস্থসাথী কার্ডের মাধ্যমে আপনি পেয়ে যাবেন বার্ষিক ৫ লক্ষ টাকার সুবিধা অর্থাৎ আপনি পশ্চিমবঙ্গের যে কোনো হাসপাতালে বা নার্সিংহোমে আপনি
আপনার চিকিৎসা করাতে পারেন , সেক্ষেত্রে সর্বাধিক ৫ লক্ষ টাকা রাজ্য সরকার দেবে।

কিন্তু ইদানিং অনেক অভাব-অভিযোগ উঠছে এই স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে। বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিং হোম এই স্বাস্থ্যসাথী কার্ড গ্রহণ করতে চাইছে না ফলে মানুষের মধ্যে একটা ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে। আর সে কারণেই এবার মুখ্যমন্ত্রী এ বিষয়ে একটি বৈঠক করে, সেই সমস্ত হাসপাতাল ও নার্সিংহোম গুলিকে কড়া বার্তাই জানিয়ে দিল যদি হাসপাতাল ও নার্সিংহোম গুলি স্বাস্থসাথী কার্ড গ্রহণ করতে না চায় তবে তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হতে পারে। এবং তিনি আরও বলেন এই কার্ডের অধীনে আরও চিকিৎসা বাড়াতে হবে, এই নিয়ে এদিন তার কড়া মনোভাব তিনি আধিকারিকদের বুঝিয়ে দেন।

আবার রোগীর রেফার করা নিয়েও করা মনোভাব মুখ্যমন্ত্রীর। জেলাশাসক ও মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকদের তিনি বলেন অফিসারদেরকে চমক দিয়ে হাসপাতাল পরিদর্শন করতে হবে, এমনকি ডি.এম, বিডিও দেরও মাঝে মাঝে হাসপাতালগুলো পরিদর্শন করার নির্দেশ দেন।

অপরদিকে রাজ্যর ম্যালেরিয়া প্রতিরোধে খুবই ভালো পদক্ষেপ নিয়েছে রাজ্য, ম্যালেরিয়া পুরোপুরি নির্মুল অভিযানের কাছাকাছি রাজ্য সে কারণে কেন্দ্রীয় সরকার স্বীকৃতি ও দিয়েছে রাজ্যকে। এবং তিনি এদিন ভ্যাকসিনের কথাও জানান যে যে জেলাগুলোতে ভ্যাকসিনের পরিমাণ কম তার কারণ জানতে চেয়েছেন তিনি সংশ্লিষ্ট আধিকারিকদের থেকে।

এরকম আর‌ও তথ্য সবার আগে পেতে ডানদিকের নীচে থাকা টেলিগ্রাম  আইকনে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হন।