Childrens-Aadhaar-Card-will-be-available-at-the-hospital-from-now-on

আপনি কি শিশুকন্যা অথবা শিশুপুত্রের মাতা, পিতা অথবা অভিভাবক? তবে এই খবরটি আপনার জন্য। শিশুকন্যা অথবা শিশুপুত্রের মাতা, পিতা অথবা অভিভাবকের জন্য রয়েছে দারুণ সুখবর। বর্তমানে ভারতের অন্যতম প্রয়োজনীয় নথি হলো আধার কার্ড (Aadhaar Card)। শিশু থেকে বৃদ্ধ প্রত্যেকেরই নিত্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন কাজে প্রয়োজন হয় আধার কার্ড। বড়দের ক্ষেত্রে আধার কার্ড প্রয়োজনীয় হলেও শিশুদের ক্ষেত্রেও তার প্রয়োজনীয়তা কিছু কম নয়। শিশুদের স্কুলের অ্যাডমিশন হোক কিংবা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট তৈরি করার ক্ষেত্রে কিংবা কোভিডের টিকা প্রদান যেকোনো ক্ষেত্রেই প্রয়োজন আধার কার্ডের। আর তাই হাসপাতালে টিকা নিতে আসা বা চিকিৎসার জন্য আসা শিশুদের আধার কার্ড তৈরি করতে উদ্যোগী ডাক বিভাগ। সুতরাং হাসপাতালে অস্থায়ী শিবির থেকে আপনি ও আপনার সন্তানের নাম আধার কার্ডের জন্য নথিভুক্ত করাতে পারেন।

ইতিমধ্যেই ডাক বিভাগের কর্মীদের সাহায্যে ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্টস ব্যাঙ্ক(IPPB) এর তরফে হাওড়ার জেলা হাসপাতালে শুরু করা হয়েছে অস্থায়ী পাইলট প্রকল্প। বর্তমানে সপ্তাহে একদিন করে অস্থায়ী শিবির তৈরি করে এই পাইলট প্রকল্পের মাধ্যমে শিশুদের আধার কার্ডের জন্য নাম নথিভুক্ত করার প্রক্রিয়া চালু করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের আইপিপিবি-র সার্কেল হেড কণিষ্ক ধীবর জানিয়েছেন, হাওড়া জেলা হাসপাতালে ইতিমধ্যেই শিশুদের আধার নথিভূক্ত করার জন্য পাইলট প্রকল্প শুরু করা হয়েছে। এরপর কি পদক্ষেপ নেওয়া হবে সেই সিদ্ধান্ত নেবেন উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কর্তারা।

ডাক বিভাগের অধীনস্থ আধার কার্ড সহ ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্টস ব্যাঙ্ক (আইপিপিবি)এর বিভিন্ন সুবিধা ডাক বিভাগের কর্মীরা গ্রাহকদের বাড়িতে গিয়ে প্রদান করে থাকেন। পশ্চিমবঙ্গ সার্কেলের চিফ পোস্ট মাস্টার জেনারেল জে চারুকেশীর জানিয়েছেন, গ্রাহকদের সুবিধার্থে ডাক বিভাগের বিভিন্ন সুবিধা প্রদানের ক্ষেত্রে নতুন প্রযুক্তির সাহায্য নেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে ব্যাংকের মতই ডাক বিভাগের গ্রাহকরাও নেফ্ট (NEFT) এবং আরটিজিএস (RTGS) এর সুবিধা ভোগ করেন। এছাড়াও তিনি জানিয়েছেন যে, কেন্দ্রীয় সরকারের সার্ভারের উন্নতি করা হয়েছে। যাতে ডাকঘর গুলিতে নেটের লিঙ্ক পেতে সুবিধা হয়, তাই এবারে সার্কেল স্তরে সার্ভারের উন্নতির দিকে নজর দেওয়া হচ্ছে। ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্টস ব্যাঙ্ক (আইপিপিবি) এর অস্থায়ী পাইলট প্রকল্প সফলতা পেলে আইপিপিবি-র সদর দফতর ও ডাক বিভাগকে জানান দেওয়া হবে। দুয়ারে সরকারের মতই কলকাতা পুরসভাগুলিতে ওয়ার্ড ভিত্তিক আইপিপিবি এর সুবিধাগুলি প্রদান করা যায় কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

• অফিসিয়াল ওয়েবসাইট:- Link

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে