Apply-Aalo-Scholarship-for-West-Bengal

পশ্চিমবঙ্গের দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের অর্থনৈতিক প্রতিকূলতা যাতে তাদের পড়াশোনার ক্ষেত্রে বাধা হয়ে না দাঁড়ায়, সেই জন্য দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বিশেষ স্কলারশিপ দেওয়া হয় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে। এই স্কলারশিপটি হলো স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম স্কলারশিপ (Swami Vivekananda Merit Cum Means Scholarship)। এই স্কলারশিপে আবেদনকারী ছাত্র-ছাত্রীরা উচ্চশিক্ষা অর্জনের জন্য মাসিক ১০০০-৫০০০ পর্যন্ত অনুদান পেয়ে থাকেন। মাধ্যমিক থেকে শুরু করে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরেও দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীরা এই স্কলারশিপের অনুদান পেয়ে থাকেন। আপনার ক্ষেত্রেও যদি আপনার পরিবারে আর্থিক অবস্থা আপনার পড়াশোনার পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়, তবে আজই আবেদন করুন স্কলারশিপের অনুদানের জন্য।

চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক, এই স্কলারশিপের ক্ষেত্রে আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা কি কি:-
১. আবেদনকারী শিক্ষার্থীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
২. যেকোনো ভাবে স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক অথবা স্নাতক পাশ হতে হবে।
৩. মাধ্যমিক স্তরে আবেদনের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীকে অবশ্যই ৬০ শতাংশ নম্বর পেয়ে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি হতে হবে।
৪.উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে আবেদনের ক্ষেত্রে শিক্ষা থেকে ৬০ শতাংশ নম্বর পেয়ে যে কোন বিষয়ে স্নাতক স্তরের কোর্সে অথবা মেডিক্যাল, ইঞ্জিনিয়ারিং, ডিপ্লোমা সংক্রান্ত যে সমস্ত কোর্স রয়েছে তা যেকোনো একটিতে ভর্তি হতে হবে।
৫. স্নাতকোত্তর স্তরে আবেদনের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বীকৃত যে কোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৫৩ শতাংশ নম্বর নিয়ে পরবর্তী কোর্সে ভর্তি হতে হবে।
৬. যে সকল ছাত্রীরা কন্যাশ্রীর K1 এবং K2 দুটি বৃত্তিই পেয়েছেন, তারা স্নাতকোত্তর স্তরে ৪৫ শতাংশ নম্বর পেয়ে ভর্তি হয় তবে তারাও এই অনুদান পাবেন।
৭. এই স্কলারশিপের অনুদান প্রতি বছর পাওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই প্রতিটি বার্ষিক পরীক্ষায় ৬০ শতাংশ নম্বর পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। তবে স্নাতকোত্তর স্তরে ৫৩ শতাংশ নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।
৮. এই স্কলারশিপের আবেদনকারী ছাত্র ছাত্রীদের পরিবারের বার্ষিক আয় অবশ্যই আড়াই লক্ষ টাকার কম হতে হবে।

• এই স্কলারশিপে দেওয়া আর্থিক অনুদানের পরিমাণ:-
১. মাধ্যমিকের পর অর্থাৎ একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত শিক্ষার্থীরা প্রতি মাসে ১০০০ টাকা করে পাবেন।
২. উচ্চমাধ্যমিকের পর অর্থাৎ স্নাতক স্তরের কোর্স অথবা মেডিক্যাল, ইঞ্জিনিয়ারিং, প্যারা মেডিক্যাল যে কোন কোর্সে পাঠরত শিক্ষার্থীরা প্রতি মাসে ১০০০-৫০০০টাকা করে পাবেন।
৩. ডিপ্লোমা সংক্রান্ত কোর্স (পলিটেকনিক) এ পাঠরত শিক্ষার্থীরা প্রতি মাসে ১৫০০টাকা করে পাবেন।
৪. স্নাতকোত্তর স্তরে পাঠরত শিক্ষার্থীরা প্রতি মাসে ২০০০-৫০০০ টাকা করে পাবেন।

• আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নথি:-
১. সর্বশেষ পরীক্ষার মার্কশিট
২. সর্বশেষ পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড
৩. পরিবারের বাৎসরিক আয় সার্টিফিকেট
৪. ব্যাংকের পাশ বইয়ের প্রথম পৃষ্ঠা
৫. Domicile Certificate(রেশন কার্ড / ভোটার আইডি / আধার কার্ড ইত্যাদি)।
৬. বয়সের প্রমাণপত্র (মাধ্যমিকের অ্যাডমিট কার্ড/ আধার/ভোটার/ বার্থ সার্টিফিকেট ইত্যাদি)।
৭. ভর্তির রশিদ
৮. আবেদনকারীর ছবি ও স্বাক্ষর

• আবেদনের পদ্ধতি:-
এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণভাবে অনলাইনে সম্পন্ন করা হয়।
১. প্রথমে আপনাকে স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম স্কলারশিপ (Swami Vivekananda Merit Cum Means Scholarship) এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে https://svmcm.wbhed.gov.in/ যেতে হবে।
২. এরপর রেজিস্ট্রেশন (Registration) অপশনে ক্লিক করুন।
৩. এরপর Apply for Fresh Application এ ক্লিক করুন।
৪. এরপর আপনার সামনে যে ওয়েব পেজটি আসবে তাতে আপনার নাম, ইমেইল অ্যাড্রেস, ফোন নম্বর, জন্ম তারিখ ইত্যাদি তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করে রেজিস্ট্রেশন (Registration) সম্পন্ন করুন। এরপর আপনাকে অ্যাপ্লিকেশন আইডি এবং পাসওয়ার্ড দেওয়া হবে তা পরবর্তী সময়ে অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাস জানার জন্য সংরক্ষিত রাখুন।
৫. এরপর অ্যাপ্লিকেশন আইডি এবং পাসওয়ার্ড এর মাধ্যমে লগ ইন (Login) করুন এবং এডিট প্রোফাইল/ অ্যাপ্লিকেশন (Edit Profile / Application) অপশনে ক্লিক করুন।
৬. এরপর আপনার সামনে ফর্মটি আসবে সেটি সমস্ত তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করে ‘Save & Next’ অপশনে ক্লিক করুন।
৭. প্রয়োজনীয় সমস্ত নথিপত্র আপলোড করুতে হবে।
৮. সমস্ত তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করে এবং সমস্ত নথি সঠিকভাবে আপলোড করে ‘Finalize Application‘ অপশনে ক্লিক করলেই আপনার অ্যাপ্লিকেশন সাবমিট হয়ে যাবে।

• অফিসিয়াল ওয়েবসাইট:- Link

এইরকম স্কলারশিপ সংক্রান্ত আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে