Apply-to-Pratibandhi-Scholarship-and-get-upto-300000-rupees-per-year

পশ্চিমবঙ্গের দরিদ্র, মেধাবী এবং প্রতিবন্ধী অর্থাৎ বিশেষভাবে অক্ষম পড়ুয়াদের উচ্চশিক্ষার পথ সুগম করার জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের জনশিক্ষা প্রসার ও গ্রন্থাগার বিভাগের তরফে বিশেষ স্কলারশিপ প্রদান করা হয়ে থাকে। এই স্কলারশিপ প্রতিবন্ধী স্কলারশিপ নামে পরিচিত (Pratibandhi Scholarship)। আজ আমরা আলোচনা করবো এই স্কলারশিপে আবেদনের ক্ষেত্রে আবশ্যিক যোগ্যতা কি কি, কারা আবেদন করতে পারবেন, আবেদন পদ্ধতির মতো গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলি।

চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক, এই স্কলারশিপে আবেদনের ক্ষেত্রে আবশ্যিক যোগ্যতা কি কি:-
১. আবেদনকারী ছাত্রছাত্রীদের অবশ্যই প্রতিবন্ধী সার্টিফিকেট থাকা বাধ্যতামূলক।
২. পূর্ববতী শ্রেণীর পরীক্ষায় ৪০ শতাংশ নম্বর নিয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।
৩. আবেদনকারী ছাত্রছাত্রীর পরিবারের বাৎসরিক আয় অবশ্যই ২ লক্ষ টাকার কম হতে হবে।
৪. এই স্কলারশিপে অনুদান পাওয়ার ক্ষেত্রে ছাত্রছাত্রীদের অবশ্যই নিজস্ব ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।
৫. যেসকল ছাত্রছাত্রীরা অন্য কোনো সরকারি স্কলারশিপের অনুদান পায়, তারা এই স্কলারশিপের অনুদান পাবেন না।
৬. কেবলমাত্র দৃষ্টি-প্রতিবন্ধী, শ্রবণ-প্রতিবন্ধী, অস্থি সংক্রান্ত প্রতিবন্ধী এবং মানসিক প্রতিবন্ধীরা এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

ইউটিউবের মাধ্যমে কিভাবে ইনকাম করা সম্ভব? জেনে নিন খুঁটিনাটি

• আর্থিক অনুদানের পরিমাণ:-
প্রতিবন্ধী স্কলারশিপের ক্ষেত্রে বিভিন্ন শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদা অনুদানের পরিমাণ ধার্য করা হয়। যথা:-
১. নবম এবং দশম শ্রেণীতে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের মাসিক ৩০০ টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে।
২. একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের মাসিক ৪০০ টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে।
৩. স্নাতক স্তরে বি.এ, বি.কম, বি.এসসি এবং ডিপ্লোমা ট্রেনিং কোর্সে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের মাসিক ৭০০ টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে।
৪. স্নাতক স্তরে বিজ্ঞান ও বিভিন্ন প্রফেশনাল কোর্সে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের মাসিক ৮০০ টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে।
৫. স্নাতক স্তরে ইংরেজি এবং চিকিৎসা বিজ্ঞান নিয়ে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের মাসিক ১,০০০ টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে।
৬. স্নাতকোত্তর স্তরে কলা এবং বাণিজ্য বিভাগে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের মাসিক ১,০০০ টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে।
৭. স্নাতকোত্তর স্তরে বিজ্ঞান এবং বিভিন্ন প্রফেশনাল কোর্সে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের মাসিক ১,২০০ টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে।
৮. এম. ফিল স্তরে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের মাসিক ১০,০০০ টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে।
৯. পিএইচডি তে পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের মাসিক ২৫,০০০ টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়ে থাকে।
এছাড়াও প্রতিবন্ধী ছাত্রছাত্রীদের যাতায়াত খরচ হিসেবে ৪০০ টাকা করে দেওয়া হয় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের জনশিক্ষা প্রসার ও গ্রন্থাগার বিভাগের তরফে। এছাড়াও কোনো প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী যদি ডাক্তারের পরামর্শে কোনো সঙ্গী ছাড়া যাতায়াত না করতে পারেন তবে ওই সঙ্গীর খরচ হিসেবে ৪০০ টাকা প্রদান করা হয়ে থাকে।

বাড়িতে বসেই অর্ডার করুন PVC আধার কার্ড, আর পেয়ে যান ATM কার্ডর মতো আধার কার্ড

• আবেদন পদ্ধতি:-
এই স্কলারশিপে আবেদনের পদ্ধতি সম্পূর্ণভাবে অফলাইনে সম্পন্ন করতে হয়।
১. প্রথমেই আপনাকে প্রয়োজনীয় ফর্মটি https://meels.wb.gov.in/ ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করতে হবে।
২. এরপর ফর্মটি সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে।
৩. তারপর প্রয়োজনীয় নথিগুলো সঠিকভাবে যুক্ত করে ফর্মটি জনশিক্ষা প্রসার অধিকারিকের কার্যালয়ে জমা করতে হবে।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে