Are-you-facing-sleeping-problems-Follow-these-six-rules-and-get-rid-of-sleeping-problems

ঘুম নিয়ে প্রচুর মানুষ সমস্যায় ভোগেন। অনেকের ক্ষেত্রেই সঠিক সময়ে বিছানায় শুয়ে পড়ার পরও কোনোমতেই ঘুম আসেনা। অনেকের ক্ষেত্রে আবার সারাদিনের ব্যস্ততা এবং ক্লান্তির পরও বিছানায় শুয়ে ঘুমোনো যেন দুঃসাধ্য ব্যাপার হয়ে ওঠে (Sleep Problem)। এসব ক্ষেত্রে বেশিরভাগ মানুষই ঘুমের ওষুধের শরণাপন্ন হয়ে থাকেন। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে ঘুমের ওষুধ স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক হয়ে দাঁড়ায়, আর তা থেকেই আবার নানাবিধ সমস্যা দেখা যায়। আর তাই আজ আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি এমন কিছু ঘরোয়া টিপস্, যেগুলো মেনে চললে আপনারা নির্বিঘ্নে ঘুমোতে পারবেন। অন্যদিকে, এই ঘরোয়া পদ্ধতিগুলোর কোনোরকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। ফলত এগুলি আপনাদের অন্য কোনো সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়াবে না।

চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক, ঘুমের ওষুধের বিকল্প হিসেবে আপনারা কি কি ঘরোয়া উপাদান ব্যবহার করতে পারেন, যার ফলে আপনারা নির্বিঘ্নে ঘুমোতে পারবেন:-

১. ঘুমানোর আগে হালকা গরম দুধ খান:-
যেসকল মানুষ প্রতিনিয়ত নিদ্রাহীনতার সম্মুখীন হচ্ছেন অথবা ঠিকভাবে ঘুমোতে পারছেন না তারা ঘুমানোর আগে হালকা গরম দুধ খান। হালকা গরম দুধ অনায়াসেই ঘুমের ওষুধের বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে। দুধের ক্যালসিয়ামও শরীরের পক্ষে যথেষ্ট উপকারী। এর পাশাপাশি দুধে থাকা ট্রিপটোফ্যান এবং অ্যামাইনো অ্যাসিড শরীরে ঘুমের আবেশ সৃষ্টি করে। ফলত রাতে খানিকটা দুধ খেলে মানসিক চাপ অনেকটা কমে এবং শরীরও খানিকটা শিথিল হয়। যার ফলে সহজেই ঘুম আসে এবং মানুষ নির্বিঘ্নে ঘুমোতে পারে। অন্যদিকে দুধের সাথে জাফরান মিশিয়ে খেলেও যথেষ্ট উপকার পাবেন।

এবার থেকে মিলবে ফ্রীতে বুস্টার ডোজ, ঘোষনা কেন্দ্র সরকারের

২. পাকা কলা খান:-
পাকা কলাও ঘুমের ওষুধের অসাধারণ বিকল্প হতে পারে। রাতে ঘুমানোর আগে পাকা কলা খেলে সেরোটোনিন এবং মেলাটোনিন হরমোন নিঃসরণ হয়। যার ফলে শরীরে ঘুমের আবেশ সৃষ্টি হয়। এর পাশাপাশি কলায় থাকা ম্যাগনেশিয়াম শরীরের মাংসপেশিকে শিথিল করে, ফলে সহজেই ঘুম আসে। যারা রাতে সহজে ঘুমোতে পারেন না তারা রাতের খাবারের সাথে একটি পাকা কলা খেলে অবশ্যই উপকার পাবেন। এছাড়াও কলা চটকে তাতে খানিকটা জিরে গুঁড়ো মিশিয়ে গরম জলের সাথে খেলেও ভালো উপকার পাবেন।

৩. ঘুমানোর আগে বাদাম খান:-
বাদাম যেমন শরীরের পক্ষে ভীষণ উপকারী, ঠিক তেমনই বাদাম খেলে অসম্ভব ভালো ঘুম হয়। যারা দীর্ঘদিন ধরে ঘুমের সমস্যায় ভুগছেন তারা রাতে ঘুমানোর আগে ১০/১২ টি বাদাম খেলে রাতের ঘুম ভালো হবে।

৪. রাতের খাবারে অবশ্যই আলু রাখুন:-
সেদ্ধ আলু বা রান্না করা আলু ঘুমের ওষুধের বিকল্প হিসেবে যথেষ্ট কার্যকরী। রাতের খাবারে আলু থাকলে আলুতে যে ট্রিপটোফ্যান হরমোন থাকে, তা হাই তোলায় ব্যাঘাত সৃষ্টি করে যে অ্যাসিড সেটিকে নিষ্ক্রিয় করে দেয়। ফলত মানুষ দ্রুত ঘুমিয়ে যেতে পারে।

পশ্চিমবঙ্গে বিশাল সংখ্যক শূন্যপদে ডাটা এন্টি অপারেটর নিয়োগ, আবেদন করুন আজই

৫. ঘুমানোর আগে খানিকটা মধু খান:-
রাতে ঘুমানোর আগে খানিকটা মধুও ভালো ঘুমের জন্য যথেষ্ট কার্যকরী ওষুধ। মধু খেলে শরীরে গ্লুকোজ উৎপন্ন হয় যা মস্তিকে উৎপাদিত ওরেক্সিন (মস্তিষ্ককে সচল রাখতে সাহায্য করে)কে নিষ্ক্রিয় করে। ফলত আপনি রাতে দ্রুত ঘুমিয়ে পড়তে পারবেন।
ভালো ঘুমের জন্য মধুর সাথে দু’চামচ মেথি পাতার রস মিশিয়ে খেলে পারেন। এতে অনিদ্রা এবং মানসিক ক্লান্তি দুটোই দূর হবে।

৬. রাতের খাবারে থাকুক ওটমিল:-
অনেকেই ওজন সংক্রান্ত সমস্যার সমাধানে ওটমিল খেয়ে থাকেন। কিন্তু ওটমিল শুধু ওজন সংক্রান্ত সমস্যার ক্ষেত্রেই নয় ঘুমের সমস্যার সমাধানেও ব্যবহৃত হয়। তাই রাতের খাবারে ওটমিল থাকলে ওটমিল থাকা মেলাটোনিন ঘুমের আবেশ সৃষ্টিতে সহায়তা করে এবং আপনি রাতে নির্বিঘ্নে ঘুমোতে পারবেন।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে