If-you-dont-pay-tax-within-tomorrow-you-may-have-to-face-heavy-penalty-Informed-by-Income-Tax-Department

আপনি কি আয়কর প্রদান করে থাকেন? তবে এই খবরটি আপনার জন্য। ভারত সরকারের তরফে ২০২২-২৩ অর্থবর্ষে আয়কর রিটার্ন ফাইল করার শেষ দিন ইতিমধ্যেই ঘোষণা করা হয়ে গেছে। একটি ট্যুইটের মাধ্যমে জানানো হয়েছে যে, ২০২২-২৩ অর্থবর্ষে আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার শেষ দিন ৩১ শে জুলাই। ইতিমধ্যেই আয়কর বিভাগের কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে সমস্ত আয়কর দাতাদের জানানো হয়েছে যাতে তারা সঠিক সময়ের মধ্যে আয়কর রিটার্ন দাখিল করে দেন। যদিও অনেক করদাতাই মনে করছেন বিগত দুই বছরে যেমন করে আয়কর রিটার্ন এর শেষ তারিখ পেরিয়ে যাওয়ার পরেও আয়কর জমা দেওয়ার সম্ভব হয়েছে এবছরও একইভাবে আয়কর রিটার্ন দাখিলের শেষ তারিখ বাড়িয়ে দেওয়া হবে। (ITR Filing last date)

কিন্তু ভারত সরকার এবং আয়কর বিভাগের তরফে ইতিমধ্যেই জানানো হয়েছে যে, এই অথবর্ষে কোনোভাবেই আয়কর জমা দেওয়ার শেষ তারিখ বাড়ানো হবে না। তা সত্ত্বেও করদাতাদের মধ্যে জল্পনার অন্ত নেই। করদাতাদের এই সকল জল্পনার মধ্যেই আয়কর বিশেষজ্ঞ সম্ভব দাগার তরফে আয়কর জমা দেওয়া সংক্রান্ত নতুন আপডেট পাওয়া গেছে। একটি ট্যুইটের মাধ্যমে তিনি জানিয়েছেন আয়কর জমা না দিলে কি কি হতে পারে সে সম্পর্কে।

এই পদ্ধতিতে গ্যাস বুক করলে পেয়ে যেতে পারেন ১ টি গ্যাস সিলিন্ডার সম্পূর্ন বিনামূল্যে, সম্পূর্ন পদ্ধতি জেনে নিন

• চলুন তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক:-
বিভিন্ন রিপোর্ট অনুসারে, বিগত দুই বছরে কোভিড মহামারীর দরুণ আয়কর রিটার্ন এর শেষ তারিখ চলে যাওয়ার পরেও করদাতাদের সময় দেওয়া হয়েছিল আয়কর রিটার্ন দাখিল করার জন্য। এবারেও করদাতারা আশা করেছিলেন যে, আয়কর রিটার্ন ফাইল করার শেষ তারিখ চলে যাওয়ার পরেও তারা নিশ্চিতভাবে সময় পাবেন। কিন্তু আয়কর বিভাগের একটি ট্যুইটে জানানো হয়েছিলো এবারে শেষ তারিখ চলে যাওয়ার পরে কোনোভাবেই আর অতিরিক্ত সময় পাবেন না করদাতারা। শুধুমাত্র আয়কর বিভাগই নয় রাজস্ব সচিব তরুণ বাজাজও সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন যে, এই অর্থবর্ষে আইটিআর ফাইল করার সময়সীমা কোনভাবেই বাড়ানো হবে না। রীতিমত কড়া বার্তা দিয়ে তিনি জানিয়েছেন যে, অনেকেই ভেবেছিলেন আয়কর রিটার্নের সময়সীমা বাড়ি দেওয়াটাই যেনো রুটিন হয়ে গেছে। কিন্তু এবারে তা হবে না। এরপর তিনি উল্লেখ করেছিলেন দৈনিক আয়কর রিটার্নের পরিমাণের ব্যাপারে এবং যারা এখনো আয়কর দেননি তারা যে শীঘ্রই দিয়ে দেবেন সে ব্যাপারেও তিনি আশা রেখেছিলেন।

আর এ সকল বিতর্কের মধ্যেই আয়কর বিশেষজ্ঞ সম্ভব দাগা একটি ট্যুইটের মাধ্যমে জানিয়েছেন যে, ৩১শে জুলাইয়ের মধ্যে আয়কর রিটার্ন দাখিল না করলে কি কি হতে পারে সে বিষয়ে। এই ট্যুইটে তিনি উল্লেখ করেছেন:-
১. আগামীকাল অর্থাৎ ৩১শে জুলাই এর মধ্যে যে সকল ব্যক্তি আয়কর রিটার্ন দাখিল করবেন না তাদের ক্ষেত্রে জরিমানা হিসেবে ITR ফাইল করার তারিখ পর্যন্ত যে পরিমাণ বকেয়া কর রয়েছে তার উপর প্রতি মাসে ১ শতাংশ হারে সুদ প্রযোজ্য হবে। এই শর্ত অনুসারে, কোনো ব্যক্তির বকেয়া করের পরিমাণ যদি দুই লক্ষ টাকা হয়ে থাকে তবে একত্রিশে জুলাইয়ের পর যতোদিন না পর্যন্ত তিনি আয়কর প্রদান করছেন, ততোদিন ওই ব্যক্তির করের সাথে প্রতিমাসে ২০০০ টাকা করে সুদ প্রযোজ্য হবে।

আপনার হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ অন্য কেউ পড়ছে নাতো? জেনে নিন এই পদ্ধতিতে

২. যে সকল ব্যক্তিদের আয় ৫ লক্ষ টাকার বেশি তারা যদি ৩১ শে জুলাইয়ের মধ্যে আয়কর রিটার্ন দাখিল না করেন তবে তাদের গুনতে হবে যথেষ্ট টাকার জরিমানা। আগামী ৩১শে ডিসেম্বরের মধ্যে যারা আয়কর রিটার্ন দেবেন তাদের ক্ষেত্রে ৫০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে। যদিও সময়ের সাথে এই জরিমানা বাড়বে এবং আগামী বছরের ৩১ শে মার্চের মধ্যে যারা আয়কর দেবেন তাদের ক্ষেত্রে জরিমানার পরিমাণ বেড়ে দাঁড়াবে ১০,০০০ টাকা।

৩. এর পাশাপাশি যে সকল ব্যক্তিদের আয় ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ের ক্ষেত্রে ১০০০ টাকার জরিমানা প্রযোজ্য হবে।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে