Invest-once-in-this-plan-of-LIC-5000-rupees-will-come-to-the-account-every-month

ভারতের অন্যতম বিখ্যাত বীমা কোম্পানি হল এলআইসি (Life Insurance Corporation)। সমগ্র দেশ জুড়ে এলআইসি এর লক্ষ লক্ষ গ্রাহক রয়েছে। ভারতের সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে বিভিন্ন ধরনের পলিসি রয়েছে LIC এর, যেসকল ক্ষেত্রে জনসাধারণ খুব সহজেই অর্থ বিনিয়োগ করতে পারেন (LIC Plan)। অনেক গ্রাহকই কোনোরকম দুশ্চিন্তা কিংবা ঝুঁকির সম্ভাবনা ছাড়াই প্রতিমাসে নিশ্চিত রিটার্ন পাবার আশা করেন। আর তাই আজ আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি, এলআইসির এমন একটি পলিসির খবর যেখানে আপনাকে টাকা দিতে হবে শুধুমাত্র একবার আর তারপর থেকে সমগ্র জীবনের জন্য আপনি প্রতি মাসে পেনশন পাবেন। চলুন তবে এলআইসির এই পলিসিটি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

এলআইসির এই পলিসিটি জীবন অক্ষয় যোজনা (LIC jeevan akshay yojana) নামে পরিচিত। LIC-এর এই পলিসিতে আপনাকে মাত্র একবার প্রিমিয়াম দিতে হবে, যার বিনিময়ে আপনি সমগ্র জীবন ধরে পেয়ে যাবেন ৫০০০ টাকার পেনশন। তবে এলআইসির এই জীবন অক্ষয় যোজনায় বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কতোগুলি শর্ত আরোপ করা হয়েছে কর্তৃপক্ষের তরফে। এই শর্ত অনুসারে, জীবন অক্ষয় যোজনায় বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীর নূন্যতম বয়স হতে হবে ৩০ বছর এবং সর্বাধিক ৮৫ বছর বয়সী ব্যক্তিরা এই যোজনায় বিনিয়োগ করতে পারবেন। তবে এই পলিসিতে আপনাকে একেবারে একটি মোটা অ্যামাউন্টের টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। জীবন অক্ষয় যোজনাতে ন্যূনতম ১ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে পারবেন। যদিও এই পলিসিতে সর্বাধিক বিনিয়োগের কোন সীমা নেই। যদিও অন্যান্য পেনশন পলিসিগুলোর মতো এই পলিসিতে করের ক্ষেত্রে কোনোরূপ ছাড় নেই। জীবন অক্ষয় যোজনায় আপনাকে আয়করের ধারা 80C এর আওতায় কর দিতে হবে। অর্থাৎ আপনি যে পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ করতে চান ট্যাক্স সহকারে আপনার প্রিমিয়ামের পরিমাণ আরো খানিকটা বেশি হয়ে দাঁড়াবে।

ব্যাঙ্কের যে কোনো অসহযোগিতায় ব্যাঙ্কের বিরুদ্ধে অভিযোগ করবেন কিকরে? জেনে নিন পুরো পদ্ধতি

• LIC-এর এই পলিসির আওতায় গ্রাহকদের পেনশন পাবার বিভিন্ন ধরনের উপায় কিংবা অপশন রয়েছে। এই অপশনগুলো হলো:
এই যোজনার আওতায় যেকোনো বিনিয়োগকারী চারটি পদ্ধতিতে পেনশন পেতে পারেন। আপনার বয়স যদি ৫৫ বছর হয়ে থাকে এবং আপনি পলিসিতে এককালীন ৯০০০০০ টাকা বিনিয়োগ করে থাকেন, তবে ট্যাক্স সহকারে আপনার প্রিমিয়ামের পরিমাণ দাঁড়াবে ৯,১৬,২০০ টাকা । প্রিমিয়ামের এই সম্পূর্ণ টাকাটি পরিশোধের পরই কোম্পানির তরফে আপনাকে পেনশন প্রদান করা শুরু করা হবে।

আপনারা যে চারটি পদ্ধতিতে পেনশন নিতে পারেন সেগুলি হলো:-
১. বছরে একবার ৬৪৮৪৫ টাকার পেনশন নিতে পারবেন আপনি।
২. বছরের দু’বার অর্থাৎ অর্ধবর্ষের ভিত্তিতে ৩,১৭,৯৩ টাকার পেনশন নিতে পারবেন।
৩. প্রতি ত্রৈমাসিকের ভিত্তিতে ১,৫৭,২৭ টাকার পেনশন পেতে পারেন আপনি।
৪. আপনি প্রতি মাসে ৫২০৯ টাকার পেনশন নিতে পারবেন।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে