Start-Cyber-Cafe-Business-and-Earn-30-to-40-Thousand-Per-Month

আপনি কী ভালো কোনো ব্যবসা শুরু করতে চাইছেন? তাহলে এই খবরটি আপনার জন্য। আজকের দিনে চাকরি-বাকরির পরিস্থিতি খুবই খারাপ। ফলে বেশিরভাগ মানুষই ব্যবসা–বাণিজ্যের প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠছেন (New Business Idea)। অনেকেই নানারকম বিজনেস শুরু করে প্রতি মাসে প্রচুর অর্থ ইনকাম করছেন। তাই আপনিও যদিও কোনো ভালো ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে এই খবরটি পুরোটা পড়ুন। এই প্রতিবেদনে সাইবার ক্যাফের ব্যবসা কীরকম হয়, কীভাবে তা শুরু করবেন, কতো বিনিয়োগ করতে হবে ইত্যাদি সমস্ত খুঁটিনাটি সম্পর্কে নীচে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো (Cyber Cafe Business)।

• সাইবার ক্যাফে (Cyber Cafe) এর ব্যবসা কী?
সাইবার ক্যাফের ব্যবসা হলো নিজের একটি কম্পিউটার দোকান খুলে সেখানে সাধারণ মানুষদের বিভিন্ন পরিষেবা দিয়ে অর্থ উপার্জন করা। আজকে প্রায় সমস্ত রকম কাজই অনলাইনে করা যায়। তাই আপনিও নিজের কম্পিউটার দোকান খুলে অনলাইনে অন্যের নানারকম কাজ করে ভালো ইনকাম করতে পারবেন।

ফের এক সপ্তাহের জন্য বন্ধ হতে পারে স্কুল-কলেজ, বড়ো জল্পনা শিক্ষামহলে

• সাইবার ক্যাফে ব্যবসায় কী কী কাজ করতে হয়?
এই ব্যবসায় সফল হতে চাইলে ভলোভাবে অনলাইনের যাবতীয় প্রায় সবরকম কাজই করতে হবে। প্রথমে আপনি তুলনামূলক সোজা কাজ, যেমন– অনলাইনে ফর্ম ফিলআপ, ট্রেনের টিকিট বুকিং, কোনো প্রকল্পে বা স্কলারশিপে আবেদন, ইনকাম সার্টিফিকেট বের করা,আধার–ভোটার– প্যান কার্ড সংক্রান্ত কাজ, ফর্ম বা গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টস প্রিন্টিং, অনলাইনে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা, এটিএম কার্ডের জন্য আবেদন ইত্যাদি কাজগুলো করতে পারেন। পরবর্তীকালে আপনি কোনো ব্যাংকের csp নিয়ে বা কোনো কোম্পানির সাথে লিংক করে সেইবিষয়ক কাজগুলোও করতে পারেন। যদি আপনি এইসব কাজগুলো অনলাইনে কীভাবে করতে হয় সেবিষয়ে না জানেন তাহলে কোনোরকম চিন্তা করবেন না। প্রতিটি কাজই কীভাবে করতে হয় সেবিষয়ে ইউটিউবে অনেক ভিডিও রয়েছে। আপনি সেগুলো দেখে এইসব যাবতীয় কাজকর্ম সহজেই করতে পারবেন।

প্রথমদিকে ইন্টারনেট সংক্রান্ত কাজগুলো করতে একটু দেরী লাগতে পারে। তবে সময়ের সাথে আপনার ব্যবসা ভালো হলে এবং আপনার কম্পিউটার দোকানে বেশি মানুষ আসলে সহজেই আপনার কাজের গতি বেড়ে যাবে।

রয়্যাল এনফিল্ড দিচ্ছে ২ লাখ টাকার বাইক মাত্র ২২ হাজার টাকায়, এই সুযোগ হাতছাড়া করবেন না

• সাইবার ক্যাফের ব্যবসা করতে কী কী লাগবে?
সাইবার ক্যাফের ব্যবসা করতে আপনার কম্পিউটার সম্পর্কিত জিনিসগুলো লাগবে।
যেমন– ডেস্কটপ কম্পিউটার, প্রিন্টার, ভালো ইন্টারনেট সংযোগ ইত্যাদি।

পরে ব্যবসা ভালো চললে আপনি জেরক্স মেশিন,বাইন্ডিং মেশিন, ফটো ক্যামেরা, ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার ইত্যাদি যন্ত্রগুলোও কিনে নিয়ে সেই বিষয়ক পরিষেবাও গ্রাহকদের দিতে পারবেন।

এছাড়া এইসব কাজ করতে হলে একটা দোকানঘর প্রয়োজন। তা আপনার নিজের হতে পারে কিংবা ভাড়াও নিতে পারেন। মনে রাখবেন, সবসময় স্কুল-কলেজ বা পঞ্চায়েত-বিডিও অফিসের আশেপাশের এলাকায় এই ব্যবসা শুরু করা সবথেকে মঙ্গলজনক। তবে আপনি নিজের এলাকার ভীড়প্রবণ জায়গাতেও সাইবার ক্যাফে শুরু করতে পারেন। সবশেষে আপনার কাজই হলো এই ব্যবসার সাফল্যের মূল চাবিকাঠি। আপনি সব কাজ ঠিকঠাকভাবে করতে পারলে আপনাআপনিই বেশি গ্রাহক আপনার দোকানে আসবে।

• সাইবার ক্যাফের ব্যবসা শুরু করতে চাইলে কত টাকা বিনিয়োগ করতে হবে?
এই ব্যবসা শুরু করতে চাইলে খুব বেশি অর্থ বিনিয়োগ করতে হবে না। কমবেশি ৩০,০০০ – ৪০,০০০ টাকার মধ্যে বিনিয়োগ করলেই এই ব্যবসা শুরু করা যেতে পারে। প্রথমে শুধু একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার ও প্রিন্টার কিনে ব্যবসা শুরু করবেন। তারপরে লাভ হলে সেই লাভের টাকাতেই উপরোক্ত পরবর্তী বৈদ্যুতিক যন্ত্রগুলো কিনে নিতে পারবেন।

এই তিনটি ব্যাঙ্কে সুদের হার বাড়লো দ্বিগুন, টাকা রাখলে বিশাল লাভ

• সাইবার ক্যাফের ব্যবসা করে কত টাকা ইনকাম করতে পারবেন?
এই ব্যবসা ভালো করে করলে মাসে অন্তত ৩০,০০০ থেকে ৪০,০০০ টাকার মধ্যে ইনকাম করতে পারবেন। প্রথমদিকে হয়তো ইনকাম একটু কম হবে (১০,০০০-২০,০০০ এর মধ্যে)। তবে সময় অনুসারে আপনার ব্যবসা ভালো চললে তিরিশ থেকে চল্লিশ হাজারে মধ্যে আপনার মাসিক ইনকাম হয়ে যাবে।

এছাড়া আপনি নিজের পাশাপাশি অন্য কাউকে দিয়েও নিজের সাইবার ক্যাফেতে আরও কম্পিউটার কিনে এ সংক্রান্ত কাজগুলো করাতে পারেন। তাহলে আরও বেশি মুনাফা অর্জন করতে পারবেন।

ব্যবসা-বাণিজ্য সংক্রান্ত এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে