The-prices-of-daily-essentials-are-going-to-increase-Find-out-which-items-will-increase-in-price-now

সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে ক্রমাগত বেড়েই চলেছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম। আর এই ক্রমবর্ধমান মূল্যবৃদ্ধির সাথে সাথেই ভাঁড়ারে টান পড়েছে সাধারণ মানুষের। সমস্ত দিক সামাল দিতে দিতে রীতিমতো নাজেহাল অবস্থা সাধারণ মানুষের। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্র সরকারের তরফে পরিবর্তন করা হচ্ছে জিএসটি (GST)-এর হার। ফলত সোমবার থেকে ফের খরচ বাড়তে চলেছে সাধারণ মানুষের। ইতিমধ্যেই ৪৭ তম জিএসটি কাউন্সিলের মিটিংয়ে একাধিক দ্রব্যের উপর জিএসটি -এর হার পরিবর্তনের কথা নির্ধারণ করা হয়েছে (GST Rate Change)। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, আগামী ১৮ ই জুলাই থেকে বিভিন্ন জিনিসের এই নতুন দামগুলি কার্যকর হতে চলেছে।

• চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক কোন কোন জিনিসের দাম বাড়তে চলেছে:-
১. পূর্বে প্যাকেজড এবং লেবেল দেওয়া লস্যি এবং বাটার মিল্কের ওপর কোনো জিএসটি (GST) ছিল না। ১৮ই জুলাই থেকে এই দ্রব্যগুলির জন্য ৫ শতাংশ জিএসটি (GST) দিতে হবে।
২. ব্যাংকের নতুন চেক বই ইস্যু করার ক্ষেত্রে ১৮ শতাংশ জিএসটি (GST) ধার্য করা হয়েছে। ফলত এবার থেকে নতুন চেক বই ইস্যু করলে ১৮ শতাংশ জিএসটি (GST) দিতে হবে।
৩. আইসিইউ(ICU) ছাড়া হাসপাতালের যে ঘরগুলোর দৈনিক খরচ পাঁচ হাজার (৫০০০) টাকার বেশি সেই ঘরগুলোর ওপর ৫ শতাংশ জিএসটি (GST) ধার্য করা হয়েছে। তবে এক্ষেত্রে আইটিসি বাদ দেওয়া হবে।
৪. যেকোনো প্রকার ম্যাপ, চার্ট অ্যাটলাস-সহ এরূপ জিনিসগুলির ওপর ১২ শতাংশ জিএসটি (GST) নির্ধারণ করা হয়েছে।

আবেদন করুন আইডিএফসি ফার্স্ট ব্যাংক এমবিএ স্কলারশিপে এবং পেয়ে যান দুই লক্ষ টাকা

৫. অন্যদিকে, হোটেলের যে ঘরগুলির খরচ ১ হাজার টাকার কিছু কম সেই ঘরগুলোর ক্ষেত্রে ১২ শতাংশ জিএসটি (GST) নির্ধারণ করা হয়েছে জিএসটি কাউন্সিলের তরফে।
৬. এতোদিন এলইডি(LED) লাইট, ফিক্সচার, এলইডি ল্যাম্পের জন্য ১২ শতাংশ জিএসটি (GST) দিতে হতো। ১৮ ই জুলাই থেকে তা বেড়ে ১৮ শতাংশ হতে চলেছে।
৭. পূর্বে ছুরি, কাটার ব্লেড, পেপার নাইফ, পেন্সিল কাটার শার্পনার, চামচ, স্কিমার, কেক-সার্ভার সহ বিভিন্ন জিনিসের ওপর ১২ শতাংশ জিএসটি (GST) দিতে হতো। এবার থেকে তা বেড়ে ১৮ শতাংশ হতে চলেছে।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে