the-process-of-giving-money-of-swami-vivekananda-scholarship-has-been-started

স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপে ২০২২ সালের স্কলারশিপের টাকা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। গত পঁচিশ তারিখ থেকে এই টাকা দেওয়া শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই প্রচুর ছাত্রছাত্রী স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের টাকা পেয়ে গিয়েছেন। কিন্তু এরকমও বহু স্টুডেন্ট রয়েছে যারা এখনও টাকা পাননি। একাধিক প্রশ্ন তাদের মনে ঘুরপাক খাচ্ছে। আজকের প্রতিবেদনে স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ সংক্রান্ত এরকমই কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন সম্পর্কে আলোচনা করা হলো (Swami Vivekananda Scholarship)।

ক) স্কলারশিপ স্ট্যাটাসে Application Sanctioned দেখাচ্ছে, মোবাইলে টাকা পাঠানোর মেসেজ এসেছে তাও স্কলারশিপের টাকা ঢোকেনি কেন?
যেহেতু Application Sanctioned হয়ে গিয়েছে এবং মেসেজ চলে এসেছে, তাহলে গ্যারান্টী আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে স্কলারশিপের টাকা ঢুকবে। মেসেজ আসার মানে নির্দিষ্ট treasury থেকে আপনার টাকা ইতিমধ্যেই release করা হয়েছে এবং তা শীঘ্রই আপনার অ্যাকাউন্টে ঢুকবে। সাধারণত মেসেজ আসার ৩ দিনের মধ্যে টাকা ঢুকে যায়। তবে ফান্ডের ঘাটতি থাকলে সাত দিন অবধিও সময় লাগতে পারে। তবে যখনই হোক না কেন, স্কলারশিপের টাকা যে পাবেনই সে বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে যান।

উচ্চমাধ্যমিকের PPR কিংবা PPS এর রেজাল্টের No Change, Revised স্ট্যাটাসগুলির অর্থ কি

খ) Application Sanctioned হয়ে গিয়েছে কিন্ত মেসেজ আসেনি কেন?
যেহেতু Application sanctioned দেখাচ্ছে তাহলে স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের জন্য আপনার আবেদন গ্রাহ্য বলে মনে করা হয়েছে। সুতরাং, কিছুদিনের মধ্যেই আপনার মোবাইলে Amount Released এর ম্যাসেজ আসবে এবং তারপরে স্কলারশিপের টাকাও আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ঢুকে যাবে। টাকা পাবেন কী পাবেন না সে বিষয়ে অহেতুক চিন্তা করবেন না। ধৈর্য্য ধরে কিছুদিন অপেক্ষা করুন ঠিক আপনার অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকবে। আসলে স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের জন্য বরাদ্দ মোট ফান্ডের হিসেবে ছাত্রছাত্রীদের অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়া হয়। যদি কখনও ফান্ডে ঘাটতি থাকে তাহলে টাকা পেতে সামান্য দেরী হতে পারে।

গ) Application এখনও Sanctioned দেখায়নি, স্কলারশিপের টাকা ঢুকবে তো?
Application Sanctioned মানে স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের জন্য আপনার আবেদন সত্য বলে বিবেচিত হয়েছে অর্থাৎ নিশ্চিত আপনি স্কলারশিপের টাকা পাবেন। যদি Sanctioned না দেখালেও আগের স্ট্যাটাসে স্কলারশিপ verified দেখায় তাহলে আপনার আবেদন Sanctioned হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। তবে তা নিশ্চিত করেও বলা যাচ্ছে না। এক্ষেত্রে আপনাকে আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে এবং প্রতিদিন স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের স্ট্যাটাস চেক করতে হবে। আসলে প্রতিবছর এই স্কলারশিপে প্রচুর আবেদন জমা পড়ে। এতো বিপুল পরিমান আবেদন যাচাই করার সময় লাগে প্রচুর। আপনার আবেদন যাচাই হয়ে গেলে অটোমেটিক তাদের তরফ থেকে Application Sanctioned করে দেওয়া হবে।

আনন্দধারা প্রকল্পে কর্মী নিয়োগ, আবেদন করুন আজই

ঘ) স্কলারশিপ হিসেবে ১২,০০০ টাকা পেয়েছি কিন্ত অনেকে ১৮,০০০ টাকা পেয়েছে কেন?
স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের টাকা কোর্স হিসেবে দেওয়া হয়। প্রতিটা কোর্সের জন্য SVMCM স্কলারশিপের টাকা নির্দিষ্ট। যেমন – একাদশ-দ্বাদশ ও স্নাতক (আর্টস ও কমার্স) ছাত্রছাত্রীদের জন্য প্রতিবছর এই স্কলারশিপের মাধ্যমে ১২,০০০ টাকা দেওয়া হয় কিন্তু স্নাতক (বিজ্ঞান) এর ক্ষেত্রে প্রতি বছরে টাকার পরিমান ১৮,০০০ টাকা। ইঞ্জিনিয়ারিং ও মেডিক্যাল পড়ুয়াদের টাকার পরিমান আরও বেশি — বছরে ৬০,০০০ টাকা করে। সুতরাং বুঝতেই পারছেন আপনি যে কোর্সে পড়ছেন সেই হিসেবেই আপনাকে স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের টাকা দেওয়া হবে। কারোর সঙ্গে কোনোরকম পক্ষপাতিত্ব করা হয় না।

এছাড়া অন্য আরও কোনো প্রশ্ন থাকলে আপনি সরাসরি স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের হেল্পলাইন নম্বরে ফোন করতে পারেন।

• হেল্পলাইন নম্বর – 1800-102-8014

• ইমেল অ্যাড্রেস – [email protected]

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে