Three-new-ration-cards-has-been-launched-in-West-Bengal-Know-in-details

পশ্চিমবঙ্গে রেশন কার্ডের ক্ষেত্রে কিছু বড়ো পরিবর্তন হয়ে গিয়েছে (Ration Card)। তিনটি ক্যাটাগরির রেশন কার্ডের ক্ষেত্রে এই নতুন পরিবর্তন আনা হয়েছে। আপনি তা অনলাইনে দেখে নিতে পারবেন। আপনাদের কাছে যে অরিজিনাল রেশন কার্ড রয়েছে সেটিতে অবশ্য কোনোরকম চেঞ্জ করা হয়নি। আপনি ওই কার্ডটি আগের মতোই ব্যবহার করতে পারবেন। তবে e-Ration card এর ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনা হয়েছে। চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক, কী সেই পরিবর্তন এবং কোন ক্যাটাগরির রেশন কার্ডের ক্ষেত্রে তা করা হয়েছে।

• কোন ক্যাটাগরির রেশন কার্ডের ক্ষেত্রে এই পরিবর্তন আনা হয়েছে?
পশ্চিমবঙ্গের তিনটি রেশন কার্ড RKSY I, RKSY II, PHH ক্যাটাগরির e-Ration কার্ডের ক্ষেত্রে নতুন এই পরিবর্তন আনা হয়েছে। তবে বাকি দুই ক্যাটাগরি যথা – SPHH, AAY এর eRation কার্ডে এখনও অবধি কোনো চেঞ্জ আনা হয়নি।

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার আবেদন করুন এই পদ্ধতিতে এবং পেয়ে যান ১,৪০,০০০ টাকা

• কী পরিবর্তন আনা হয়েছে?
পশ্চিমবঙ্গে eRation কার্ডের ক্ষেত্রে ডিজাইনে পরিবর্তন আনা হয়েছে। PHH, RKSY I এবং RKSY II এই তিনটি রেশন কার্ডের ডিজাইন অনেকটা চেঞ্জ হয়ে গিয়েছে। RKSY I ক্যাটাগরির eRation কার্ডের নীচের দিকে সাদা ও খয়েরি লম্বালম্বি ডোরাকাটা দাগ দেওয়া রেশন কার্ড দেখা যাচ্ছে। RKSY II ক্যাটাগরির eRation কার্ডে আবার সাদা ও খয়েরি ডোরাকাটা দাগটি আড়াআড়িভাবে দেওয়া রয়েছে। PHH ক্যাটাগরির eRation কার্ডে নীল রঙের রেশন কার্ডের মাঝখানে কোণাকুণি সাদা আবছা দাগ দেখা যাচ্ছে। তবে অন্য ক্যাটাগরির, যেমন – AAY, SPHH এইসব ক্যাটাগরির eRation কার্ডের ডিজাইনে এখনও অবধি কোনো পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়নি।

• e-Ration কার্ড কীভাবে অনলাইনে ডাউনলোড করবেন?
(১) প্রথমে পশ্চিমবঙ্গ খাদ্য দপ্তরের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট food.wb.gov.in তে যাবেন।

(২) এবার নীচের দিকে Special Services এর মধ্যে অনেকগুলো বক্স রয়েছে। তার মধ্যে আপনি eRation Card লেখা বক্সটিতে ক্লিক করবেন।

(৩) এরপরে নীচের দিকে Click Here to Download e-Ration Card লিংকে ক্লিক করে নিজের রেশন কার্ড ক্যাটাগরি এবং রেশন কার্ড নম্বর লিখে Download এ ক্লিক করবেন।

কারা পাবেন না পিএম কিষান প্রকল্পের ১২ তম কিস্তির টাকা, জেনে নিন পুরো খবর

তাহলেই আপনার মোবাইলে পিডিএফ আকারে e-Ration কার্ডটি ডাউনলোড হয়ে যাবে। উক্ত তিনটি ক্যাটাগরির রেশন কার্ড হলে আপনি নিজের e-Ration কার্ডটির মধ্যে পরিবর্তন লক্ষ্য করতে পারবেন। নতুন এই eRation কার্ডের মাধ্যমে আপনি এটিএম কার্ড, প্যান কার্ডের মতো এই রেশন কার্ডকেও ছোটো ধরনের পিভিসি কার্ডের মতন বানিয়ে নিতে পারবেন। এই নতুন কার্ডটি দিয়েও আপনি অরিজিনাল রেশন কার্ডের মতো রেশন সামগ্রী তুলতে পারবেন। এছাড়াও অনলাইনে কোনো জায়গায় রেশন কার্ড আপলোড করতে বললে আপনি e-Ration কার্ডটিও আপলোড করতে পারবেন। এই eRation কার্ডটির অরিজিনাল রেশন কার্ডের মতোই সমপরিমান ভ্যালু রয়েছে।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে