Apply-for-Labour-Card-in-West-Bengal-and-will-get-upto-1-lakh-rupees

আপনি কি লেবার কার্ডের জন্য আবেদন করতে চান? তবে এই খবরটি আপনার জন্য। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে শিশু হোক কিংবা কৃষক, মহিলা কিংবা শিক্ষার্থী অথবা শ্রমিক সমস্ত জনসাধারণের সাহায্যের জন্যই বিভিন্ন জনকল্যাণমূলক প্রকল্প শুরু করা হয়েছে। আর এই প্রকল্পগুলির মধ্যে একটি যথেষ্ট উল্লেখযোগ্য নাম হলো নির্মাণ শ্রমিক প্রকল্প (Labour Card)। যদিও পশ্চিমবঙ্গ জনসাধারণের কাছে এটি লেবার কার্ড নামেই পরিচিত। এই প্রকল্পের আওতায় পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী দিনমজুর, শ্রমিক সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে খেটে খাওয়া মানুষদের ভাতা প্রদান করার মাধ্যমে সহায়তা করা হয়ে থাকে। এছাড়াও রয়েছে চিকিৎসা সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে নানা প্রকারের সুবিধা। আর আজ আমরা আলোচনা করতে চলেছি, আপনারা কিভাবে লেবার কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন, আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নথি কি কি, লেবার কার্ডের মারফত আপনার কি কি সুবিধা পেতে চলেছেন ইত্যাদি সহ বিভিন্ন তথ্যাদি।

• চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক, কারা এই প্রকল্পে আবেদনের ক্ষেত্রে আবশ্যিক যোগ্যতা কি কি:-
১. পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী যেসকল কর্মীরা ভবন, সড়কপথ, রেল, ট্রামলাইন, বিমানবন্দ, সেচনিকাশি, বন্যা নিয়ন্ত্রণ, বিজলি ও জল সরবরাহ ব্যাবস্থা, টেলিফোন ও টেলিফোনের টাওয়ার লাগানোর কাজ, জলাশয়, জলাধার, সুড়ঙ্গ বানানো, পাইপ লাইন, তেল ও গ্যাস সংস্থাপন ইত্যাদি কাজ নির্মাণ ও মেরামতি, রক্ষণাবেক্ষণ এর কাজে যুক্ত রয়েছেন। এই সমস্ত কাজের পাশাপাশি যে সকল কর্মীরা বিভিন্ন ইমারত ভাঙ্গার কাজেও যুক্ত রয়েছেন তারা এই লেবার কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন।
২. আবেদনকারী শ্রমিকের বয়স অবশ্যই ১৮ বছর থেকে ৬০ বছরের মধ্যে হতে হবে।
৩. আবেদনকারী শ্রমিককে এক বছরের মধ্যে অন্ততপক্ষে ৯০ দিন কাজের যুক্ত থাকতে হবে।

• লেবার কার্ডের আওতায় থাকা ব্যক্তিরা কি কি সুবিধা পাবেন:-
১. যেসকল ব্যাক্তিদের এই লেবার কার্ড রয়েছে তারা দুর্ঘটনার কারণে চোট পেলে চিকিৎসার জন্য ১০০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত অনুদান পাবেন। অন্যদিকে দুর্ঘটনার কারণে কাজ করতে অক্ষম হয়ে গেলে ওই ব্যক্তি এককালীন ২৫,০০০ টাকা পাবেন।
২. চিকিৎসা ক্ষেত্রে অস্ত্রোপচার করা হলে ৩০,০০০ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হবে।
৩. কঠিন, দুরারোগ্য ব্যাধির ক্ষেত্রে লেবার কার্ডের আওতায় থাকা কোনো ব্যক্তি বা তার ওপর তার নির্ভরশীল পরিবারের সদস্যরা চিকিৎসার জন্য সর্বোচ্চ ১০,০০০ টাকা পাবেন।
৪. কোনো নির্মাণ কর্মী যদি যক্ষা রোগে আক্রান্ত হন তবে তাকে ৩,০০০ টাকা অনুদান দেওয়া হবে।
৫. লেবার কার্ডের আওতায় থাকা কোনো কর্মীর মৃত্যু হলে তার পরিবারকে ৩,০০০ টাকা দেওয়া হবে। অন্যদিকে কাজ করার সময় যদি কর্মক্ষেত্রে কোন কর্মীর মৃত্যু হয়ে থাকে তবে ওই কর্মীর পরিবারের সদস্যদের এককালীন ১ লক্ষ টাকা অনুদান দেওয়া হবে।
৬. লেবার কার্ড এর অধীনে থাকা কর্মীরা ৬০ বছর বয়সের পর প্রতি মাসে ৫০০ টাকা থেকে ৮৭০ টাকা পর্যন্ত পেনশন পাবেন। ওই কর্মীর মৃত্যুর পর তার স্ত্রী ৫০ শতাংশ টাকা পেনশন হিসেবে পাবেন।
৭. যেসকল ব্যক্তির লেবার কার্ড রয়েছে তারা গৃহ নির্মাণের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত লোন পাবেন। তবে এক্ষেত্রে সুদের হার রয়েছে ৫ শতাংশ।

৮. যেসকল কর্মীদের লেবার কার্ড রয়েছে তাদের সন্তানদের শিক্ষার ক্ষেত্রে ২০০০ টাকা থেকে শুরু করে ১৫,০০০ টাকা পর্যন্ত অনুদান দেওয়া হবে।
৯. যেসকল মহিলাদের লেবার কার্ড রয়েছে তারা গর্ভাবস্থায় ৬০০০ টাকা পর্যন্ত পাবেন এবং কোন কারণে যদি গর্ভপাত হয়ে থাকে তবে সর্বোচ্চ ৪,০০০ টাকা পর্যন্ত পাবেন।
১০. লেবার কার্ডের আওতায় থাকা ব্যক্তিরা চশমা কেনার ক্ষেত্রে ৫০০ টাকা করে পাবেন এবং কাজের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় যেকোন যন্ত্রপাতি কেনার ক্ষেত্রে ১,০০০ টাকা করে পাবেন।
১১. নির্মাণ কর্মীদের মৃত্যুর পর তাদের অন্তেষ্ট্যি ক্রিয়ার ক্ষেত্রে ৩,০০০ টাকা করে পাবেন।
১২. নির্মান শ্রমিক প্রকল্পের অধীনে থাকা ব্যক্তিদের মেয়ের বিয়ের ক্ষেত্রে ১০,০০০ টাকা করে পাবেন।
১৩. নির্মাণ কর্মীদের প্রয়োজনে সাইকেল কেনার ক্ষেত্রে ৫০০০ টাকা করে অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে।
১৪. নির্মাণ কর্মীর মৃত্যু হলে বা যদি এই প্রকল্পের আওতায় তিনি থাকতেন না চান তবে তিনি জমানো টাকার ৪ শতাংশ ফেরত পাবেন।

• লেবার কার্ডের জন্য আবেদনের পদ্ধতি:-
লেবার কার্ড এর জন্য আবেদনের ক্ষেত্রে কেবলমাত্র কলকাতার বাসিন্দারা পশ্চিমবঙ্গের নির্মাণকর্মী কল্যাণ পর্ষদের অফিসে ২৭ নম্বর ফর্ম এবং ৩১ নম্বর ফর্ম সম্পূর্ণভাবে পূরণ করে প্রয়োজনের নথি সহ জমা দিয়ে লেবার কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন।
অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের বাকি সমস্ত জেলার নাগরিকরা অনলাইনের মাধ্যমে edistrict.wb.gov.in এই ওয়েবসাইট থেকেই লেবার কার্ড এর জন্য আবেদন করতে পারবেন।
১. অনলাইনে লেবার কার্ড এর জন্য আবেদনের ক্ষেত্রে আবেদনকারীকে সর্বপ্রথম https://edistrict.wb.gov.in/PACE/login.do ওয়েবসাইটে যেতে হবে।
২. এরপর প্রথমে আপনাকে আপনার নাম, মোবাইল নম্বর, ইমেইল অ্যাড্রেস এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এরপর আপনার অ্যাকাউন্টটি তৈরি হলে ওটিপির মাধ্যমে সেটি ভেরিফাই করতে হবে।
৩. এরপর আপনার ইউজার নেম, পাসওয়ার্ড এবং ক্যাপচা কোডটি সঠিকভাবে পূরণ করে লগইন করুন।
৪. এরপর আপনার সামনে যে ওয়েব পেজটি আসবে তাতে apply for labour card অপশনে ক্লিক করুন।
৫. সবশেষে প্রয়োজনে সমস্ত তথ্যগুলি পূরণ করুন। এরপর প্রয়োজনীয় নথিগুলি আপলোড করে সাবমিট করলেই লেবার কার্ড এর জন্য প্রয়োজনীয় ফর্মটি সম্পূর্ণভাবে পূরণ করা সম্পন্ন হবে।
আপনার আবেদনটি যদি পশ্চিমবঙ্গ সরকার দ্বারা অনুমোদন করা হয় তবে এই edistrict.wb.gov.in ওয়েবসাইট থেকেই আপনারা অনলাইনে লেবার কার্ডটি ডাউনলোড করতে পারবেন। যেকোনো ক্ষেত্রে প্রয়োজন হলে আপনারা এই কার্ডটি প্রদর্শন করলেই সমস্ত সুবিধাগুলি পাবেন।

• আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নথি:-
১. আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
২. বয়সের শংসাপত্র ( ভোটার আইডি/ রেশন কার্ড/ ড্রাইভিং লাইসেন্স)
৩. ব্যাংকের পাসবই।
৪. স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে সংগ্রহ করা আপনার কাজের প্রমাণপত্র।
৫. রেজিস্ট্রেশন ফি।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে