Central-Government-gives-Agriculture-Loan-of-3-lakh-rupees-at-One-and-half-percent-interest-to-farmers

কেন্দ্র সরকার অত্যন্ত আকর্ষণীয় একটি সুযোগ নিয়ে এসেছে। এবার থেকে ৩ লক্ষ টাকা অবধি স্বল্পমেয়াদী লোনের ক্ষেত্রে মাত্র ১.৫ শতাংশ সুদ দিতে হবে। উল্লেখ্য, এর আগেও কেন্দ্র সরকার কর্তৃক কৃষকদের জন্য নানান কল্যাণমূলক প্রকল্প চালু করা হয়েছে। কেন্দ্র সরকারের তরফে পিএম কিষানের মাধ্যমে প্রতিটি কৃষককে বছরে ৬,০০০ টাকা আর্থিক সাহায্য থেকে শুরু করে কৃষিজ নানান যন্ত্রপাতি কিনতে ভালো পরিমান ভর্তুকি দেওয়া, কিষান ক্রেডিট কার্ড চালু করা সহ ইত্যাদি নানারকম উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এবার সেই কৃষিক্ষেত্র সংক্রান্ত প্রকল্পগুলোর মধ্যেই আরও একটি সংযোজন হতে চলেছে। আপাতত কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভার বৈঠকে কৃষিজ ঋণ (Agricultural Loan) সম্পর্কিত এবিষয়ে সম্মতি জানানো হয়েছে।

গত বুধবার ১৭ ই আগস্ট,২০২২ তারিখে মন্ত্রীসভার বৈঠকে কৃষিক্ষেত্রে স্বল্পমেয়াদী লোনের ক্ষেত্রে বার্ষিক কম সুদের হারের প্রস্তাবের ক্ষেত্রে সবুজ সংকেত মিলেছে। ৩ লক্ষ টাকা অবধি কৃষিজ লোনের ক্ষেত্রে বার্ষিক ১.৫ % সুদের সহায়তার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ২০২২-২৩ সাল থেকে ২০২৪-২৫ সাল পর্যন্ত স্বল্পমেয়াদী কৃষি লোনের ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য হবে। উক্ত সময়সীমার মধ্যে বিভিন্ন সরকারি, বেসরকারি ব্যাংক, আঞ্চলিক ব্যাংক, সমবায় ব্যাংক প্রভৃতি নানান ঋণ প্রদানকারী সংস্থাকে বার্ষিক ১.৫% সুদের সাবভেনশন প্রদান করা হবে। সুদের সাবভেনশনের এই বৃদ্ধি কৃষিক্ষেত্রে প্রবাহমানতার স্থায়িত্ব এবং ঋণ প্রদানকারী গ্রামীণ ও সমবায় ব্যাংকগুলোর আর্থিক স্বাস্থ্য ও কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে বলে বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছে। এই সিদ্ধান্তের ফলে কর্মসংস্থানও বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে। কারণ প্রায় সকল প্রকার কৃষিজ কার্যকলাপ, যেমন:- ডেয়ারি, পোল্ট্রি, পশুচাষ, মাছচাষ ইত্যাদি নানান ক্ষেত্রে কৃষিলোন দেওয়া হয়। ফলে কম সুদে লোন পেলে স্বাভাবিকভাবেই এইসব ক্ষেত্রে কর্মসংস্থানের সুযোগও বাড়বে। এই প্রকল্প চালু করতে হলে ২০২২-২৩ সাল থেকে ২০২৪-২৫ অর্থবর্ষ পর্যন্ত অতিরিক্ত ৩৪,৮৫৬ কোটি টাকা বাজেটে বরাদ্দ করতে হবে।

নতুন পদ্ধতিতে ঘরে বসে আধার কার্ডের ঠিকানা পরিবর্তন করুন খুব সহজে

এই প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকদের কৃষিক্ষেত্র এবং তা সম্মন্ধিত আরও নানান কাজকর্মের জন্য বার্ষিক ৭% হারে কৃষিজ ঋণ প্রদান করা হবে। দ্রুত ও সময়মতো লোন শোধ করার জন্য কৃষকদের আরও ৩% সাবভেনশন (PRI) দেওয়া হবে। অর্থাৎ একজন কৃষক সময়মতো তার লোন শোধ করতে পারলে বার্ষিক ৪% হারে ক্রেডিট পাবেন। প্রসঙ্গত, কৃষকরা যাতে ব্যাংকে সর্বনিম্ন হারে সুদ দিতে পারে, তা নিশ্চিত করার জন্য কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে এর আগে ইন্টারেস্ট সাবভেনশন স্কিম (ISS) চালু করা হয়েছিলো, যা পরবর্তীকালে মোডিফাইড ইন্টারেস্ট সাবভেনশন স্কিম (MISS) নামে পরিচিত হয়েছে। এর মাধ্যমে কৃষকদের ভর্তুকিযুক্ত সুদে স্বল্পমেয়াদী ক্রেডিট প্রদান করা হয়। কৃষকদের কল্যাণের জন্য চালু করা এই স্কিমের মাধ্যমে ভবিষ্যতে কৃষকদের কতটা সুবিধা হয় সেটাই এখন দেখার বিষয়।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে