Special-discounts-will-be-available-on-electricity-bills-from-now-on

পশ্চিমবঙ্গবাসীর জন্য WBSEDCL-এর পক্ষ থেকে রয়েছে দারুণ এক সুখবর। অর্থনৈতিক মন্দার জেরে ভারতজুড়ে দিনের পর দিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম। আর এই মুদ্রাস্ফীতির বাজারে মধ্যবিত্ত এবং দরিদ্র পরিবারগুলির পক্ষে বিদ্যুৎ বিলের খরচ বহন করা অত্যন্ত কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে। দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজনীয় অন্যান্য জিনিসের পাশাপাশি বিদ্যুৎ বিলের জোগান দিতে গিয়ে রীতিমতো নাজেহাল অবস্থা জনসাধারণের। আর এমতাবস্থায় পশ্চিমবঙ্গবাসীর জন্য WBSEDCL এর তরফে এমন একটি নিয়ম কার্যকরী করা হয়েছে, যাতে গ্রাহকরা বিদ্যুৎ বিলের ওপর পাবেন বাড়তি ছাড়। আর আজ আমরা আলোচনা করতে চলেছি, কিভাবে আপনারা এই বাড়তি ছাড় পাবেন, কতো শতাংশ ছাড় দেওয়া হচ্ছে সেই সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য।

• চলুন তবে WBSEDCL এর এই নিয়মটি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক:-
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে পশ্চিমবঙ্গবাসীর সুবিধার কথা মাথায় রেখে অনেকগুলি জনকল্যাণমূলক প্রকল্প চালু করা হয়েছে। আর এবারে আরও একবার পশ্চিমবঙ্গবাসীর বিদ্যুৎ বিলের বোঝা কমাতে WBSEDCL এর পক্ষ থেকে চালু করা হলো নতুন নিয়ম, যার জেরে সাধারণ মানুষের বিদ্যুৎ বিলের বোঝা অনেকটাই কমবে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে বিদ্যুৎ বিল জমা করার ক্ষেত্রে এই ছাড় পেতে গেলে গ্রাহকদের কয়েকটি সহজ পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে, যথা:-

এক ধাক্কায় পেট্রোলের দাম বাড়লো ৪৪ টাকা, মাথায় হাত সাধারণ মানুষের

১. WBSEDCL এর তরফে জারি করা একটি নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, যেসকল গ্রাহকরা বিদ্যুৎ বিল মেটানোর ক্ষেত্রে বাংলা সহায়তা কেন্দ্র থেকে ই-পেমেন্টের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল জমা করবেন, তাদের বিদ্যুৎ বিলের উপর ১ শতাংশ ছাড় দেওয়া হবে WBSEDCL এর তরফে। ফলত স্বাভাবিকভাবেই সাধারণ মানুষের বিদ্যুৎ বিলের বোঝা খানিকটা হলেও কমবে।

২. বাংলা সহায়তা কেন্দ্রের পাশাপাশি গ্রাহকরা যদি তাদের বিদ্যুৎ বিল নির্ধারিত সময়ের মধ্যে WBSEDCL এর ওয়েবসাইট থেকে অনলাইন পেমেন্টের মাধ্যমে জমা করেন, তবে তারাও এই ধরনের ছাড় পাবেন।

প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে সমস্ত পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে যে সকল বাংলা সহায়তা কেন্দ্র চালু করা হয়েছে, ওই সকল কেন্দ্রগুলির জনপ্রিয়তা বাড়ানোর জন্যই WBSEDCL এর পক্ষ থেকে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। বাংলা সহায়তা কেন্দ্রগুলি এবং এই কেন্দ্রগুলিতে উপলব্ধ সুবিধাগুলির ব্যাপারে যাতে বেশি সংখ্যক মানুষ জানতে পারে তার জন্যই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে