Start-this-business-and-earn-huge-amount-of-money

আপনি কী ভালো কোনো ব্যবসা শুরু করতে চাইছেন? তাহলে আজকের খবরটি আপনার অনেক কাজে লাগবে। আজকে আপনাদের সাথে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা নিয়ে আলোচনা করবো। বর্তমানে অনেকেই রেস্টুরেন্ট ব্যবসা শুরু করতে চান, কিন্ত সঠিক পরিকল্পনার অভাবে তা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই বাস্তবায়িত হয়ে ওঠে না। তবে আর চিন্তা করবেন না। আজকের এই প্রতিবেদনে রেস্টুরেন্ট ব্যবসার খুঁটিনাটি নিয়ে আলোচনা করবো, যা ভালো করে পর্যবেক্ষণ করে তবেই এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। মনে রাখবেন, সঠিক পরিকল্পনা অনুযায়ী এই ব্যবসা শুরু করলে আপনি মাস শেষে মোটা টাকা কামাতে পারবেন (New Business Idea)।

• কীভাবে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা শুরু করবেন?

রেস্টুরেন্ট ব্যবসা শুরু করার আগে সবার প্রথমেই যেটি দরকার তা হলো জায়গা। জনবহুল এলাকায় নিজের রেস্টুরেন্ট চালু করলে তা থেকে লাভের পরিমান অনেক বেশি হবে। যদি আপনি জনবহুল এলাকাতে নিজের রেস্টুরেন্ট বানানোর জন্য জায়গা নাও পেয়ে থাকেন তবে চিন্তা করবেন না। নিম্নলিখিত পরবর্তী বিষয়গুলো ভালো করে মেনে চলবেন। ভালোমতো রেস্টুরেন্ট চালাতে পারলে নিশ্চয় বেশী গ্রাহক আপনার রেস্টুরেন্টে আসবেন। জায়গা নির্বাচন হয়ে গেলে নিজের রেস্টুরেন্টটি তৈরী করে নেবেন। আপনি কীরকম রেস্টুরেন্ট বানাতে চান তার জন্য আগে থেকেই ভালো করে প্ল্যান করে নেবেন। চেষ্টা করবেন অত্যাধুনিক ডিজাইনের রেস্টুরেন্ট বানানোর। রেস্টুরেন্ট সম্পূর্ণ হয়ে গেলে আপনি বিভিন্ন সরঞ্জাম যেমন:- নকশাখচিত আলো, এসি, ভালো ডিজাইন করা টেবিল, চেয়ার ইত্যাদির ব্যবস্থা করবেন।

আগামী একুশে আগস্ট পর্যন্ত এই ১০ দিন বন্ধ থাকতে চলেছে ব্যাংক, কোন কোন দিন জেনে নিন এখনই

আপনার রেস্টুরেন্টের জন্য নগর নিগম থেকে ট্রেড ও ফুড লাইসেন্সও নিয়ে নিবেন। রেস্টুরেন্ট চালানোর জন্য অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি তা হলো রাঁধুনি নির্বাচন করা। চেষ্টা করবেন, ভালো মানের এক বা একাধিক রাঁধুনিকে কাজে রাখার। মনে রাখবেন, আপনার রেস্টুরেন্টের খাবার সুস্বাদু হলে গ্রাহকের সংখ্যাও আপনাআপনিই বাড়বে এবং বহু রিপিট কাস্টমারও আপনার রেস্টুরেন্টে আসবেন। ফলে আপনার লাভ বেশি হবে। এছাড়া আরও যেই বিষয়টি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ তা হলো মেনু বানানো। সবসময় ভালো ডিজাইনের মেনু বানানোর চেষ্টা করবেন। কম সময়ে বানানো যায় এমন ডিশগুলোকে মেনুতে রাখবেন, যাতে তা গ্রাহকদের চোখে পড়ে। যেইসব ডিশগুলো আপনার রেস্টুরেন্টে বেশি অর্ডার হয় তা আগে থেকেই কিছুটা বানিয়ে রাখলে কমসময়েই তা পরিবেশন করতে পারবেন। ফলে সময়ও কম লাগবে। এতে টেবিল টার্নঅ্যারাউন্ডও (এক টেবিলে যতজন গ্রাহক খেতে বসবেন) বাড়বে এবং আপনার লাভের পরিমানও অনেকগুন বৃদ্ধি পাবে।

আরও একটা কথা, যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেটি হলো রেস্টুরেন্ট ব্যবসার প্রসার ঘটানো। একটি রেস্টুরেন্টে আপনি যতজন গ্রাহককে খাবার পরিবেশন করতে পারবেন, অনলাইনে তার থেকেও অনেকগুন বেশি মানুষের অর্ডার প্রস্তুত করতে পারবেন। ফলে চেষ্টা করবেন আপনার রেস্টুরেন্টকে বিভিন্ন জনপ্রিয় ফুড ডেলিভারি অ্যাপ যেমন:- জোম্যাটো, সুইগি প্রভৃতির সাথে সংযুক্ত করানোর যার ফলে আপনার মাসিক ইনকাম বহুগুন বেড়ে যাবে। এইরকম ছোট্ট ছোট্ট বিষয়গুলি মাথায় রাখলে আপনার রেস্টুরেন্ট ব্যবসাও ভালোমতো চলবে।

আপনার কি রেশন কার্ড রয়েছে, তবে এই গুরুত্বপূর্ণ খবরটি জেনে রাখুন, নইলে পড়তে হবে বিপদে

• রেস্টুরেন্ট ব্যবসা চালানোর জন্য কতো টাকা বিনিয়োগ করতে হবে এবং লাভ কত হবে?

রেস্টুরেন্টটি চালানোর জন্য কতো টাকা বিনিয়োগ করতে হবে তা নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয়। ক্ষেত্রবিশেষে তা ভিন্ন হয়। লাভের পরিমানও রেস্টুরেন্ট বিশেষে ভিন্ন ভিন্ন হয়। আপনি নিজের রেস্টুরেন্ট পরিচালনার জন্য কতো টাকা খরচ করবেন তা আগে থেকেই স্থির করে নেবেন। একটি সাধারণ রেস্টুরেন্ট বানাতে আপনার অন্তত ৪ থেকে ৫ লক্ষ টাকা খরচ হতে পারে। যতো ভালো রেস্টুরেন্ট বানাবেন খরচের পরিমানও তত বেশী হবে। লাভের পরিমান আপনার দৈনিক গ্রাহক সংখ্যার ওপরে নির্ভর করবে। যদি রেস্টুরেন্টে খাবার পরিবেশন করার পাশাপাশি অনলাইনেও সার্ভিস দিয়ে থাকেন তাহলে মাস শেষে সহজেই লক্ষাধিক টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

ব্যবসা-বাণিজ্য সম্পর্কিত এইরকম আরও নানান খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে