Start-this-business-with-small-capital-and-earn-lakhs-of-rupees-per-month

আপনি কী কম খরচের মধ্যে ভালো কোনো ব্যবসা শুরু করতে চাইছেন? তাহলে এই খবরটি আপনার অনেক কাজে লাগবে। আজকে এমন একটি ব্যবসা সম্পর্কে আলোচনা করবো যেটি আপনি সহজেই শুরু করতে পারবেন। টাকাও বেশী লাগবে না। নিজের সামর্থ্যের মধ্যে এই ব্যবসা শুরু করে সহজেই মাস শেষে মোটা টাকা আয় করতে পারবেন। উল্লেখ্য, আজকাল বেশিরভাগ মানুষই চাকরি-বাকরির পরিবর্তে ব্যবসা-বাণিজ্য শুরু করতে বেশী আগ্রহ দেখাচ্ছেন। তবে মনে রাখবেন তাড়াহুড়ো করে কোনো কিছু শুরু করা উচিত নয়। আপনার সামর্থ্য, বিনিয়োগের পরিমান, ব্যবসার চাহিদা, বাজারদর প্রভৃতি সমস্ত বিষয় বিবেচনা করে কোনো ব্যবসা শুরু করা উচিত। তবে আজকে যে ব্যবসা সম্পর্কে আলোচনা করবো, তা আপনি যেকোনো জায়গাতেই সহজে শুরু করতে পারবেন এবং তার চাহিদাও সবসময় প্রায় একইরকম থাকবে। তাহলে চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক সেই ব্যবসা সম্পর্কে (New Business Idea)।

• কী এই ব্যবসা?
আজকের আলোচিত বিজনেস আইডিয়া হলো ফল ও শাকসবজির ব্যবসা। ফল ও শাকসবজির ব্যবসা বিভিন্ন রকমের হয়। যেমন:- নিজে দোকান দিয়ে তা বিক্রি করা, পাইকারি হারে বাজারে বিক্রি করা, বড়ো বিজনেস শুরু করে অফলাইন ও অনলাইন দু’ভাবেই এই ব্যবসা করা। নিজের সামর্থ্যের ওপর ভিত্তি করে আপনি ফল ও শাকসবজির যে কোনো ব্যবসা শুরু করেই ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের স্ট্যাটাস কীভাবে চেক করবেন জেনে নিন

• কেনো এই ব্যবসা শুরু করবেন?
শাকসবজি, ফলমূল মানুষ প্রতিদিনই খেয়ে থাকেন। ফলে এই ব্যবসা শুরু করে আপনি কখনও খালি হাতে ফিরবেন না। যতো দিন যাচ্ছে মানুষ আরও বেশী স্বাস্থ্য সচেতন হচ্ছে। ফলে শাকসবজি ও ফল বিক্রির হার প্রতি বছর বেড়েই চলেছে। পরিসংখ্যান অনুসারে ভারতবর্ষে প্রতি বছর ফল ও সবজির মার্কেট ৫ % হারে বেড়ে চলেছে এবং ২০২৬ সালের মধ্যে এই বাজার ৪৩২ মিলিয়ন মেট্রিক টনে পৌঁছোবে। পাশাপাশি দেশের মানুষদের চাহিদা মেটানোর পরে প্রতি বছর বিদেশেও কমবেশী ৯০০০ কোটি অর্থেরও বেশী সবজি ও ফল রপ্তানি করা হয়। একটি সমীক্ষা অনুসারে ভারতে একজন ব্যক্তি প্রতিবছর প্রায় ৮৩ কেজি শাকসবজি ও ফলমূল খেয়ে থাকেন। ফলে বুঝতেই পারছেন সারা বছরে সবসময়েই এই ব্যবসার প্রচুর চাহিদা রয়েছে।

• কীভাবে ফল ও শাকসবজির ব্যবসা শুরু করবেন?
এই ব্যবসা শুরু করার জন্য প্রথমে নিজের সাপ্লাই এর উৎস ঠিক করে নেবেন। যদি আপনি নিজের জমিতে শাক সবজি উৎপাদন করেন তাহলে তা বাজারে বিক্রি করে আপনি বেশী লাভ করতে পারবেন। নিজে উৎপাদন না করেও আপনি পাইকারি রেটে কিনে তা ক্রেতাদের কাছে ভালো দামে বিক্রি করতে পারেন। নিজের দোকান খোলার জন্য সাধারণত তেমন বেশিকিছুর দরকার পড়ে না। স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে ট্রেড লাইসেন্স নিয়েই আপনি এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। পাশাপাশি কোনো ব্যবসায়িক সমিতি থাকলে সেটিতেও নিজের নাম নথিভুক্ত করতে পারেন কারণ সমিতিগুলোর পক্ষ থেকে ব্যবসায়ীদের নানারকম সুযোগসুবিধা দেওয়া হয়ে থাকে। তবে বড়ো কোনো ব্যবসা শুরু করতে চাইলে ট্রেড লাইসেন্স, জিএসটি রেজিস্ট্রেশন এবং ফুড লাইসেন্স ইত্যাদি সবকিছু বানিয়ে রাখলেই ভালো।

শুরু করুন এই ব্যবসা, মাস শেষে আয় হবে মোটা টাকা

ক্রেতাদের চাহিদার ওপর নির্ভর করে আপনি নিজের সামগ্রী কিনবেন। ফলে নষ্টের পরিমান অনেকগুন কমে যাবে। সবসময় চেষ্টা করবেন ঋতুভিত্তিক ফলমূল ও শাকসবজি নিজের দোকানে বেশী রাখার। কারণ এইসব জিনিসের চাহিদা সবসময় বেশী থাকায় আপনার উপার্জন ভালো হবে। তবে অনেক শৌখিন মানুষ সারাবছরই অন্য ঋতুর ফল ও সবজি কিনে থাকেন। সেইরকম কত ক্রেতা আপনার দোকানে আসছে তার আন্দাজ করে নিয়েও অন্য ঋতুর সবজি ও ফলের ব্যবস্থাও করতে পারেন। এরজন্য প্রয়োজন একজন ভালো হোলসেলারের সঙ্গে যোগাযোগ করার। তার স্টক বেশী থাকলে আপনি সবকিছুই সেখান থেকে কিনে বাজারে ভালো দামে বিক্রি করতে পারবেন। সবমিলিয়ে ধরলে একটা ছোটোখাটো ফলমূল ও শাকসবজির ব্যবসা আপনি ১০,০০০ টাকার মধ্যেই শুরু করতে পারবেন এবং প্রতি মাসে ২০,০০০ থেকে ৫০,০০০ টাকা অবধি ইনকাম করতে পারবেন।

ব্যবসা-বাণিজ্য সম্পর্কিত এইরকম আরও নানান খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের টেলিগ্রাম আইকনে ক্লিক করে আজই জয়েন হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে