Students-will-of-class-twelve-get-money-to-buy-mobiles-very-recently

আপনি কি দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত ছাত্র অথবা ছাত্রী? অথবা আপনার সন্তান কি দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত? তবে এই খবরটি আপনার জন্য। পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বীকৃত দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে দারুণ সুখবর। করোনার একের পর এক ঢেউয়ের জেরে রীতিমতো দু’বছর লকডাউন জারি করা হয়েছিল সম্পূর্ণ ভারতজুড়ে। আর এই পরিস্থিতিতে অনলাইন শিক্ষা ব্যবস্থার দিকে ঝুঁকে ছিলো সম্পূর্ণ ভারত, আর তা থেকে বাদ পড়েনি পশ্চিমবঙ্গও। কিন্তু এক্ষেত্রে সমস্যাও ছিল অনেক। অনেক দরিদ্র পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীরা তাতে পারিবারিক দুরবস্থার কারণে অনলাইন মাধ্যমে ক্লাস করতে পারছিলেন না।

এমতাবস্থায় পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের তরফে দরিদ্র এবং পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের সাহায্য করার স্বার্থে বিনামূল্যে ট্যাব/মোবাইল দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের এই প্রকল্পটি তরুণের স্বপ্ন প্রকল্প (Taruner Swapna Scheme) নামে পরিচিত। এই প্রকল্পের আওতায় পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্বীকৃত যেকোনো বিদ্যালয়ে পাঠরত দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের মোবাইল অথবা ট্যাব কেনার জন্য ১০ হাজার টাকা দেওয়া হয়ে থাকে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে চলতি বছরেও বিগত দুই বছরের মতো মোবাইল অথবা ট্যাব কেনার জন্য টাকা দেওয়া হবে। আর আজ আমরা আলোচনা করতে চলেছি, কবে নাগাদ ছাত্রছাত্রীরা এই মোবাইল/ট্যাব কেনার টাকা পেতে পারেন এ সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য।

আবেদন করুন প্রধানমন্ত্রী জন আরোগ্য যোজনায় এবং পেয়ে যান সর্বোচ্চ ৫ লক্ষ টাকার বিনামূল্যের চিকিৎসা

• চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক, কবে শিক্ষার্থীরা ট্যাব/ মোবাইল কেনার টাকা পেতে চলেছেন:-
কিছুদিন পূর্বেই বিকাশ ভবনের পক্ষ থেকে সমস্ত স্কুলগুলির প্রধান শিক্ষকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিলো যাতে তারা শিক্ষার্থীদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সমস্ত সঠিক তথ্য বিকাশ ভবনে জমা করেন। বিগত দুই বছরে শিক্ষার্থীদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য নিয়ে যথেষ্ট সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছিল বিকাশ ভবনকে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছিলো শিক্ষার্থীদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সমস্ত তথ্য ঠিক থাকলেও অ্যাকাউন্টটি আর চালু নেই, এছাড়াও অনেকেরই অ্যাকাউন্টের তথ্যে ভুল ছিলো, যার জেরে অনেক শিক্ষার্থীই টাকা পাননি। ফলত অভিযোগের আঙুল উঠেছিল বিকাশ ভবনের দিকে। আর তাই এবার এসমস্ত দায়িত্ব বিকাশ ভবনের তরফে স্কুলগুলোর প্রধান শিক্ষকদের ওপর ন্যাস্ত করা হয়েছে।

ইতিমধ্যেই অধিকাংশ শিক্ষার্থীই সমস্ত প্রয়োজনীয় তথ্য জমা দিয়ে দিয়েছেন। আর তাই তরুণের স্বপ্ন প্রকল্পের টাকা কবে পাবেন তা নিয়েই রীতিমতো কৌতূহলে রয়েছেন শিক্ষার্থীরা। তবে বিভিন্ন রিপোর্ট অনুসারে জানা গেছে যে, শিক্ষার্থীরা ট্যাব/ মোবাইল কেনার জন্য প্রয়োজনীয় টাকা এখনও অন্ততপক্ষে ২-৩ মাস পরে পাবেন। তবে এই টাকা ক্রেডিট হওয়ার কোনো নির্দিষ্ট তারিখ নেই। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অন্যান্য প্রকল্পের মতোই বেশ খানিকটা সময় নিয়ে এই প্রকল্পের টাকা শিক্ষার্থীদের অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করা হবে। আশা করা হচ্ছে, নভেম্বর মাস পর্যন্ত ট্যাব/মোবাইল কেনার টাকা শিক্ষার্থীদের অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার হয়ে যাবে। যদিও এ ব্যাপারে এখনও বিকাশ ভবনের তরফে অফিসিয়ালি কিছুই জানানো হয়নি।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে