Free-Ration-is-going-to-be-closed-the-new-notification-has-released-by-the-Food-Department

রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে খাদ্যসাথী প্রকল্পে আনা হলো বিরাট পরিবর্তন। বন্ধ করা হতে পারে বিনামূল্যের রেশন। করোনা মহামারীর জেরে বিগত দু’বছর ধরে লকডাউনের কারণে সমগ্র ভারতবর্ষ যে অর্থনৈতিক মন্দা এবং টালমাটাল পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছিলো তা থেকে সাধারণ মানুষকে উদ্ধারের জন্য জোর কদমে নেমে পড়েছিলো ভারতের কেন্দ্র সরকার সহ সমস্ত রাজ্যের রাজ্য সরকারগুলি। সাধারণ মানুষের নূন্যতম খাদ্যের চাহিদা মেটানোর জন্য রাজ্য এবং কেন্দ্র সরকারের যৌথ উদ্যোগে চালু করা হয়েছিলো বিনামূল্যে রেশন (Free Ration) ব্যবস্থা এবং খাদ্যসাথী প্রকল্প। তবে বর্তমানে ধীরে ধীরে করোনা মহামারীর প্রকোপ কাটিয়ে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে জনজীবন।

তাই রাজ্য সরকারের তরফেও রেশন ব্যবস্থা পরিবর্তন আনার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। বিভিন্ন রিপোর্ট অনুসারে মনে করা হচ্ছে, এবার থেকে খাদ্যসাথী প্রকল্পের অধীনে কোনো দ্রব্য সামগ্রী বিনামূল্যে পাওয়া যাবে না। রাজ্য এবং কেন্দ্রের পক্ষ থেকে বেঁধে দেওয়া নির্দিষ্ট দামেই কিনে নিতে হবে এই সমস্ত দ্রব্যসামগ্রী। রেশন ব্যবস্থা এই পরিবর্তন সামনে আসার পর থেকেই জনসাধারণের মধ্যে নতুন রেশন ব্যবস্থা নিয়ে ক্রমাগত জল্পনা বাড়ছে। অধিকাংশ মানুষই জানেন না তাদের ঠিক কতো টাকা দাম দিয়ে কিনতে হবে চাল, গম, আটা সহ অন্যান্য দ্রব্য। আর তাই আজ আমরা আলোচনা করতে চলেছি কেনো এরূপ পরিবর্তন আনা হচ্ছে খাদ্যসাথী প্রকল্পে, কতো টাকা দরে পাওয়া যাবে চাল, গম, আটা সহ অন্যান্য দ্রব্য ইত্যাদি এ বিষয় সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য।

• খাদ্যসাথী প্রকল্পের অধীনে বিনামূল্যের রেশন কেনো বন্ধ করা হবে:-
করোনাকালে দেশের জনসাধারণকে সম্পূর্ণরূপে সহায়তা করার জন্য কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের তরফে যৌথভাবে বিনামূল্যে সমগ্র দেশবাসীকে রেশন দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছিল। অন্যান্য রাজ্যগুলির থেকে আরও এক ধাপ এগিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার ক্ষেত্রে চালু করা হয়েছিলো খাদ্যসাথী প্রকল্প এবং খাদ্যসাথী কার্ড। কিন্তু বর্তমানে পরিস্থিতি ধীরে ধীরে পাল্টাচ্ছে। অন্যদিকে বিগত প্রায় দুইবছর ধরে খাদ্যসাথী প্রকল্পের অধীনে বিনামূল্যে রাজ্যবাসীকে রেশন দেওয়ার কারণে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ওপর আর্থিক চাপও বাড়ছে। আরো কিছুদিন যদি এই বিনামূল্যের রেশন প্রক্রিয়া চালু থাকে তবে এই বিপুল পরিমাণ আর্থিক চাপ সামলাতে রীতিমতো বেগ পেতে হবে রাজ্যকে। যার জেরে বর্তমানে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার প্রক্রিয়া বন্ধ করা হবে। এবার থেকে একটি নির্দিষ্ট মূল্যের বিনিময়ে রেশন দোকান থেকে চাল, গম, আটাসহ অন্যান্য জিনিস সংগ্রহ করতে হবে সমগ্র রাজ্যবাসীকে।

৬ ই সেপ্টেম্বর বিশেষ ছুটির কারণে পরীক্ষা বাতিলের নির্দেশ দিলো মধ্যশিক্ষা পর্ষদ

• চাল গম আটা সহ অন্যান্য দ্রব্য কি দামে পাওয়া যাবে রেশন দোকানে:-
খাদ্য দপ্তরের এক আধিকারিকের বক্তব্য থেকে জানা গিয়েছে যে, চলতি মাস অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাস থেকেই বিনামূল্যের রেশন ব্যবস্থা তুলে দিতে উদ্যোগী রাজ্য সরকার। আরও জানা গিয়েছে যে, বিনামূল্যে রেশন ব্যবস্থা বন্ধ হওয়ার পর থেকে আপনাদের ৩ টাকা প্রতি কেজি মূল্যে কিনে নিতে হবে চাল। অন্যদিকে ২ টাকা করে প্রতি কেজি গমের জন্য খরচ করতে হবে। এর পাশাপাশি এও জানা গিয়েছে যে, চলতি মাসে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাসে গ্রাহকরা রেশন থেকে তেল, ছোলা এবং লবণ পেতে চলেছেন। তবে এই খাদ্যদ্রব্যগুলি পরবর্তীতে পাওয়া যাবে কিনা এ নিয়ে কোনো নির্দিষ্ট কোনো বিজ্ঞপ্তি পাওয়া যায়নি।

• কবে থেকে বন্ধ করা হবে বিনামূল্যের রেশন:-
বিভিন্ন রিপোর্ট অনুসারে মনে করা হচ্ছে, এই সেপ্টেম্বর মাস থেকেই খাদ্যসাথী প্রকল্পের অধীনে বিনামূল্যের রেশন বন্ধ করা হবে। তবে খাদ্যসাথী প্রকল্পের অধীনে কতো দিন পর্যন্ত বিনামূল্যের রেশন পাওয়া যাবে কিংবা কবে থেকে বিনামূল্য রেশন বন্ধ করা হবে তা নিয়ে এখনও পর্যন্ত অফিসিয়ালভাবে কোনো বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়নি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে