Know-the-Important-update-about-the-new-changes-in-Ration-System

পশ্চিমবঙ্গের রেশন ব্যবস্থায় বড়ো পরিবর্তন করা হলো রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জারি করা বিজ্ঞপ্তি অনুসারে জানা গিয়েছে যে, এবার থেকে যেকোনো পরিবারের আর্থিক পরিস্থিতির ওপর বিচার বিবেচনা করে তবেই কোনো পরিবার বিনামূল্যে রেশন পাওয়ার যোগ্য কিনা তা বিচার করা হবে। এছাড়াও ডিজিটাল রেশন কার্ড নিয়ে ১২ টি নতুন নিয়ম জারি করা হয়েছে। সুতরাং এবার থেকে প্রকৃত দরিদ্র পরিবারের সদস্যরাই কেবলমাত্র বিনামূল্যের রেশন পাবেন। কিন্তু কিভাবে এই রেশন দেওয়ার প্রক্রিয়া কার্যকরী করা হবে কিংবা কোন কোন যোগ্যতার ভিত্তিতে কোনো একটি পরিবারকে বিনামূল্যে রেশন দেওয়া হবে তা নিয়ে রাজ্যজুড়ে জল্পনার অন্ত নেই। আর আজ আমরা সকল রাজ্যবাসীর সুবিধার্থে এই পোস্টে আলোচনা করতে চলেছি এই বিনামূল্যে রেশন সংক্রান্ত যে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়েছে এবং যে নতুন ১২ টি নিয়ম জারি করা হয়েছে তা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

• চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক বিনামূল্যে রেশন সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে কি জানানো হয়েছে খাদ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে:-
পশ্চিমবঙ্গ সরকারের খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্পের অধীনে যে সমস্ত পরিবারগুলি রয়েছে সেই সমস্ত পরিবারগুলিকে তাদের আর্থিক মাপকাঠির বিচারে রাজ্য সরকারের তরফে রেশন কার্ড প্রদান করা হয়ে থাকে। জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্প এবং রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্পের অধীনে থাকা ১ নম্বর কার্ড পাওয়ার ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গবাসীকে বেশ কিছু শর্ত পূরণ করতে হয়। কিন্তু অনেকক্ষেত্রেই দেখা গেছে বেশ কিছু নাগরিক নিজেদের বিভিন্ন তথ্য, বিশেষ করে আর্থিক পরিস্থিতি গোপন করে রাজ্য সরকারের থেকে বিনামূল্যের রেশন নিচ্ছে। যার জেরে বর্তমানে খাদ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন পরিবারগুলির আর্থিক পরিস্থিতি যাচাই করে তবে রেশন কার্ড প্রদানের দিকে জোর দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও আরও জানানো হয়েছে যে, যেসমস্ত পরিবারগুলির আর্থিক পরিস্থিতি যথেষ্ট ভালো তাদের রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্পের ২ নম্বর কার্ড দেওয়া হয়ে থাকে। তবে কোনো পরিবার যদি তাদের আর্থিক পরিস্থিতির লুকিয়ে বিনামূল্যে রেশন গ্রহণ করে থাকে তবে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার কথাও জানানো হয়েছে খাদ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে।

মাত্র ৩ টাকার বিনিময়ে মিলবে ১ জিবি ডেটা সারা বছর ধরে, রিচার্জ করুন এখনই

বিনামূল্যের রেশন নিয়ে বারংবার অভিযোগে জেরে খাদ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে এইরূপ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই স্বাস্থ্য দপ্তরের পোর্টালের মারফত মৃত ব্যক্তিদের রেশন কার্ডগুলিকে চিহ্নিতকরণ করা হয়েছে, এছাড়াও টানা রেশন না তোলার কারণে অনেক কার্ড ব্লক পর্যন্ত করে দেওয়া হয়েছে। যার কারণে বর্তমানে রাজ্যের অধীনে থাকার রেশন কার্ডের সংখ্যা ১০ কোটি থেকে কমে দাঁড়িয়েছে ৮ কোটি ৯৮ লক্ষে। খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষ জানিয়েছেন যে, ৯৮ শতাংশ রাজ্যবাসী ই-পস যন্ত্রে তাদের আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে রেশন সংগ্রহ করছেন, যে সমস্ত রাজ্যবাসী বিভিন্ন কারণে তা করতে পারছেন না তারা সঠিকভাবে রেশন পাচ্ছেন কিনা তা নিয়েও খাদ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে বিশেষভাবে নজর দেওয়া হচ্ছে।

• ডিজিটাল রেশন কার্ড পাওয়ার ক্ষেত্রে কি কি শর্ত মানতে হবে:-
১. যেসমস্ত পরিবারে কোনো মোটর চালিত দুই, তিন অথবা চার চাকার যান রয়েছে অথবা নৌকা রয়েছে সেই সমস্ত পরিবারের সদস্যরা ডিজিটাল রেশন কার্ড পাবেনা।
২. যেসকল পরিবারে কৃষিক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় তিন অথবা চার চাকার যন্ত্র, ট্রাক্টর অথবা হারভেস্টার রয়েছে সেই সকল পরিবারের সদস্যরা ডিজিটাল রেশন কার্ড পাওয়ার যোগ্য নয়।
৩. যেসমস্ত পরিবারে ৫০ হাজার বা তার বেশি ক্রেডিটসহ কিষাণ ক্রেডিট কার্ড রয়েছে সেই সমস্ত পরিবার ডিজিটাল রেশন কার্ড পাওয়ার যোগ্য নয়।
৪. যেসকল পরিবারে কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে কিংবা রাজ্য সরকারের অধীনে অথবা PSU সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত সাহিত্য শাসিত সংস্থা অথবা স্থানীয় সংস্থাগুলির আওতায় কর্মরত কোনো গেজেটেড বা নন গেজেটেড কর্মী রয়েছে তারা ডিজিটাল রেশন কার্ড পাবার ক্ষেত্রে যোগ্য নন।

৫. সরকারের সাথে অকৃষি উদ্যোগ সহ নিবন্ধিত কোনো পরিবার ডিজিটাল রেশন কার্ডের সুবিধাগুলি পাবে না।
৬. যেসমস্ত পরিবারে ১৫ হাজার টাকা কিংবা তার বেশি উপার্জনকারী সদস্য রয়েছে তারা এই ডিজিটাল রেশন কার্ডের সুবিধা পাবেন না।
৭. যেসকল পরিবারে আয়কর কিংবা পেশাদার কর প্রদানকারী সদস্য রয়েছে সেই সমস্ত পরিবার ডিজিটাল রেশন কার্ড পাবে না।
৮. যেসমস্ত পরিবারের বাসস্থান অর্থাৎ বাড়িতে তিন বা তার থেকে বেশি ঘর রয়েছে এবং সমস্ত ঘরে পাকা দেওয়াল এবং ছাদ রয়েছে সে সমস্ত পরিবার ডিজিটাল রেশন কার্ড পাওয়ার যোগ্য নয়।

ATM থেকে টাকা তুলতে গিয়ে টাকা আটকে গেছে অথচ ব্যাংক ব্যালেন্স কেটে নিয়েছে! এমন অবস্থায় কী করবেন

৯. যেসমস্ত পরিবারের রেফ্রিজারেটর রয়েছে তারা এই ডিজিটাল রেশন কার্ডের সুবিধা পাবেন না।
১০. যেসকল পরিবারের নিজস্ব ল্যান্ডলাইন ফোন রয়েছে তারা এই বিনামূল্যে ডিজিটাল রেশন কার্ডের সুবিধা পাবেন না।
১১. যে পরিবারগুলিতে কমপক্ষে একটি সেচের সরঞ্জাম অথবা ২.৫ একর বা তার বেশি সেচযোগ্য রয়েছে সেই সমস্ত পরিবারগুলি ডিজিটাল রেশন কার্ডের সুবিধা পাওয়ার যোগ্য নয়।
১২. যে পরিবারগুলিতে দুই বা ততোধিক ফসলের মরশুমে ৫ একর বা তার বেশি জমিতে জল সেচের ব্যবস্থা রয়েছে তারা ডিজিটাল রেশন কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন না।

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে