63799704 9c2e 4de5 aa0c cad40356eed5

আপনার কি স্বাস্থ্যসাথী কার্ড রয়েছে? তবে এই খবরটি আপনার জন্য। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে বড় ঘোষণা (Swastha Sathi Card Important Update) করা হলো স্বাস্থ্য ভবনের পক্ষ থেকে। ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসার পরই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে জনসাধারণের চিকিৎসা ক্ষেত্রে সহায়তা করার জন্য কার্যকরী করা হয়েছিলো স্বাস্থ্যসাথী কার্ড এবং স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প। এতোদিন পর্যন্ত সরকারি হোক কিংবা বেসরকারি যেকোনো হাসপাতালে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে যেকোনো রোগের চিকিৎসা করানো গেলেও এবার থেকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা করার ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে কতোগুলি বিশেষ নিয়ম (Swastha Sathi Card Important Update) কার্যকরী করা হয়েছে। যার জেরে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করানোর ক্ষেত্রে সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে সমগ্র পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ মানুষকে। আর তাই আজ আমরা আপনাদের জন্য স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে চিকিৎসা করানোর ক্ষেত্রে জারি হওয়া এই নতুন নিয়মগুলি নিয়ে হাজির হয়েছি।

• চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে চিকিৎসা করানোর ক্ষেত্রে এই নতুন নিয়মগুলি কি কি ?
গতকাল অর্থাৎ বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য ভবনের পক্ষ থেকে জারি করা একটি বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে চিকিৎসা সংক্রান্ত এই সমস্ত নতুন নিয়মগুলি সম্পর্কে সমগ্র রাজ্যবাসীকে জানানো হয়েছে। স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের চিকিৎসা সংক্রান্ত নতুন নিয়মগুলি হলো:-

১. স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মারফত রাজ্যের বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালগুলিতে হার্নিয়া, হাইড্রোসিল সহ দাঁতের চিকিৎসার ক্ষেত্রে রাশ টানলো রাজ্য সরকার। রাজ্য সরকারের তরফে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি অনুসারে সমস্ত প্রকার হাইড্রোসিল অপারেশন এবার থেকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে সরকারি হাসপাতালগুলি থেকেই করতে হবে।

খাদ্য দপ্তর চালু করলো নতুন অ্যাপ, এখন রেশন কার্ডের যাবতীয় কাজ হবে একটি অ্যাপেই

২. এর পাশাপাশি এই বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়েছে যে, অত্যন্ত জটিল অসুখ না হলে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের অধীনে হার্নিয়ার চিকিৎসা থেকে শুরু করে অপারেশনের ক্ষেত্রেও অগ্রাধিকার পাবে রাজ্যের সমস্ত সরকারি হাসপাতালগুলি। শুধুমাত্র অবস্ট্রাকটেড হার্নিয়া, ইনকারসেটেড হার্নিয়া, স্ট্রাঙ্গুলেটেড হার্নিয়ার ক্ষেত্রেই স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মাধ্যমে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করা যাবে।

৩. এই সমস্ত নিয়মগুলির পাশাপাশি এই নির্দেশিকায় আরো বলা হয়েছে যে, স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মারফত ক্যান্সারের চিকিৎসা একমাত্র রাজ্যের সরকারি হাসপাতালগুলিতেই করানো যাবে। এক্ষেত্রে বেসরকারি হাসপাতালগুলিতে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের কোনোরকম সুবিধা পাওয়া যাবে না। কেবলমাত্র মুখের ক্যান্সারের সার্জারির ক্ষেত্রে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার সুবিধা পাবেন রাজ্যের নাগরিকরা।

৪. দাঁতের সমস্ত রকম চিকিৎসার ক্ষেত্রেও স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের সমস্ত সুবিধাগুলি রাজ্যের সাধারণ মানুষেরা একমাত্র সরকারি হাসপাতালগুলিতেই পাবে। দাঁতের চিকিৎসার ক্ষেত্রে বেসরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের কোনোরকম সুবিধা পাওয়া যাবে না। একমাত্র যেসকল রোগীদের দুর্ঘটনার কারণে দাঁতের প্রস্থেসিস, ম্যাক্সিওফেসিয়াল সার্জারি করানো প্রয়োজন তারাই স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের মারফত বেসরকারি হাসপাতলে চিকিৎসার সুবিধা পাবেন।

পোস্ট অফিসে বছরে ২৯৯ টাকা বিনিয়োগ করলেই পাওয়া যাবে ১০ লাখ টাকার সুবিধা, বিস্তারিত জেনে নিন

এইরকম আরও নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে