The-people-of-the-West-Bengal-are-going-to-get-money-of-ten-West-Bengal-schemes-in-the-month-of-September

আপনি কি রাজ্য সরকার এবং কেন্দ্র সরকারের অধীনে বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় অনুদান পেয়ে থাকেন? তবে এই খবরটি আপনার জন্য। পুজোর আগে সমগ্র রাজ্যবাসীর জন্য রয়েছে দারুণ সুখবর। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে চলতি মাসে ১০ টি প্রকল্প (West Bengal schemes) এর আওতায় নারী থেকে শুরু কৃষক, বৃদ্ধ সকলকে টাকা প্রদান করা হবে। আজ আমরা সকলের সাহায্যার্থে আলোচনা করতে চলেছি আপনারা চলতি মাসে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাসে ঠিক কোন কোন প্রকল্পের অধীনে অনুদান পেতে চলেছেন।

• চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক কোন ১০ টি প্রকল্প এর অধীনে টাকা পাবেন আপনারা:-
১. কৃষি যন্ত্রায়ন:- কৃষি যন্ত্রায়ন প্রকল্পের অধীনে বাংলার কৃষকদের সাহায্য করার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে চাষের কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন যন্ত্র কেনার জন্য অর্ধেক টাকা দেওয়া হয়ে থাকে। তবে এই প্রকল্পের অধীনে যন্ত্র কেনার অনুদান পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রথমে আপনাকে সম্পূর্ণ টাকা দিয়ে যন্ত্র কিনতে হবে তারপর সরকারের পক্ষ থেকে সম্পূর্ণ মূল্যের অর্ধেক মূল্য কৃষকদের অ্যাকাউন্টে সরাসরি ট্রান্সফার করা হয়। চলতি মাসে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাসে কৃষকরা এই প্রকল্পের অধীনে টাকা পেতে চলেছেন।

২. বাংলা কৃষিসেচ যোজনা:- পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে কার্যকরী এই বাংলা কৃষিসেচ যোজনায় কৃষকদের সেচের কাজে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন যন্ত্র কেনার জন্য অনুদান দেওয়া হয়ে থাকে। এই প্রকল্পের অধীনে কৃষকরা ২০,০০০ টাকা থেকে ৭০,০০০ টাকা পেয়ে থাকেন। এই সেপ্টেম্বর মাসেই আপনারা বাংলা কৃষিসেচ যোজনার অধীনে টাকা পেতে চলেছেন।

৩. বাংলা শস্য বীমা:- বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের ফলে কৃষকদের ফল নষ্ট হওয়ার দরুণ কৃষকদের যথেষ্ট ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। আর কৃষকদের এই ক্ষতির হাত থেকে বাঁচাতে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে কার্যকরী বাংলা শস্য বীমা প্রকল্পের অধীনে বিভিন্ন দুর্যোগের কারণে নষ্ট হওয়া ফসলের ভর্তুকি দেওয়া হয়ে থাকে। বিভিন্ন রিপোর্ট অনুসারে জানা গিয়েছে, যেসকল কৃষকরা বিগত বছরে খারিফ সিজনে এবং রবি সিজনে এই শস্য বীমার জন্য আবেদন করেছিলেন তারা এই সেপ্টেম্বর মাসেই কৃষকরা বাংলা শস্য বীমা প্রকল্পের অধীনে টাকা পেতে চলেছেন।

আবেদন করুন প্রধানমন্ত্রী স্বনিধি যোজনায় এবং পেয়ে যান সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকার ঋণ

৪. প্যাডি পারচেস:- অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কৃষকরা ফসল বিক্রি করে যথেষ্ট টাকা পাননা, যার ফলে কৃষকদের যথেষ্ট লোকসান হয়। আর তাই কৃষকদের সাহায্য করার খাতিরে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে কার্যকরী প্যাডি পারচেস প্রকল্পে কৃষকরা সরকারকে ধান বিক্রি করে লাভবান হতে পারে। অবশ্যই এক্ষেত্রে ধানের পরিমাণের ওপর আপনি কত টাকা পাবেন তা নির্ভর করছে। যারা জুলাই অথবা আগস্ট মাসে ধান বিক্রি করেছিলেন কিংবা সেপ্টেম্বর মাসে ধান বিক্রি করতে চলেছেন তারা এই সেপ্টেম্বর মাসেই এই প্রকল্পের অধীনে টাকা পেতে চলেছেন।

৫. কিষাণ ক্রেডিট কার্ড:- কৃষকদের কৃষিকাজের ক্ষেত্রে বিভিন্ন যন্ত্র থেকে শুরু করে ফসলের বীজ পর্যন্ত কেনার জন্য যাতে ঋণগ্রস্ত না হতে হয় তাই রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে এই প্রকল্পের আওতায় সর্বোচ্চ ৩,০০,০০০ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়ে থাকে। যারা বিগত মাসে এই প্রকল্পের অনুদানের জন্য আবেদন করেছিলেন তারা এই সেপ্টেম্বর মাসে কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের অধীনে টাকা পাবেন।

৬. কিষাণ মানধন যোজনা:- কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকে কার্যকরী এই পেনশন যোজনায় ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী কৃষকরা আবেদন করতে পারেন এবং পরবর্তীতে ওই সকল কৃষকরা তাদের ৬০ বছর হলে এই যোজনার অধীনে প্রতি মাসে ৩০০০ টাকা করে পেনশন পেয়ে থাকেন। এই সেপ্টেম্বর মাসেই কৃষকরা এই প্রকল্পের অধীনে টাকা পেতে চলেছেন বলেই জানা গেছে।

৭. কৃষক বার্ধক্য ভাতা:- পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের তরফে ৬০ বছর বা তার বেশি বয়সী কৃষিকাজে অক্ষম কৃষকদের সাহায্যের খাতিরে কৃষক বার্ধক্য ভাতা প্রকল্পের আওতায় ১০০০ টাকা করে দেওয়া হয়ে থাকে। বিভিন্ন সমীক্ষা অনুসারে জানা গিয়েছে, চলতি মাসে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাসে আপনারা এই প্রকল্পের অধীনে টাকা পেতে চলেছেন।

৮. কৃষক আত্মা প্রকল্প:- কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের যৌথ উদ্যোগে কার্যকরী এই কৃষক আত্মা প্রকল্পে কৃষকদের কৃষিকাজের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি, উন্নতমানের বীজ ও সার ব্যবহারের মাধ্যমে ফলন বৃদ্ধি করার জন্য টাকা দেওয়া হয়ে থাকে। এই প্রকল্পের অধীনে কৃষকরা ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়ে থাকে। এই সেপ্টেম্বর মাসেই কৃষকরা এই প্রকল্পের অধীনে টাকা পেতে চলেছেন।

প্রকাশিত হলো আবাস যোজনা ২০২২-২০২৩ এর শহরের নতুন লিস্ট, আপনার নাম রয়েছে কিনা এখনই চেক করুন

৯. কৃষকবন্ধু প্রকল্প:- রাজ্য সরকারের তরফে কার্যকরী এই প্রকল্পে কৃষকদের চাষের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সার, বীজ, কীটনাশক সহ অন্যান্য দ্রব্য কেনার ক্ষেত্রে অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। এই প্রকল্পের আওতায় কৃষকরা ২০০০ থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত পেয়ে থাকেন। বিভিন্ন রিপোর্ট অনুসারে জানা গিয়েছে, যেসকল কৃষকরা এখনও এই প্রকল্পের টাকা পাননি তারা চলতি মাসে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাসে এই প্রকল্পের টাকা পেতে চলেছেন। তবে কেবলমাত্র যেসকল কৃষকদের কৃষকবন্ধু প্রকল্পের স্ট্যাটাসে অ্যাকাউন্ট ভ্যালিড লেখা রয়েছে তারাই এই মাসে উক্ত প্রকল্পের টাকা পাবেন।

১০. কৃষকবন্ধু প্রকল্প (ডেথ বেনিফিট):- রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে কার্যকরী এই প্রকল্পের আওতায় ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী কোনো কৃষকের মৃত্যু হলে তার পরিবার কিংবা আইনসম্মত উত্তরাধিকারীকে সর্বোচ্চ ২,০০,০০০ লক্ষ দেওয়া হয়ে থাকে। যদিও এক্ষেত্রে মৃত কৃষকের পরিবারকে কৃষকের মৃত্যুর ৩ মাসের মধ্যে এই প্রকল্পের অনুদানের জন্য আবেদন করতে হবে। এই সেপ্টেম্বর মাসেই কৃষকরা এই প্রকল্পের অধীনে টাকা পাবেন বলেই জানা গিয়েছে।

এইরকম আরও প্রকল্প সংক্রান্ত নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে