পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে সাধারণ জনগণের জন্য বিভিন্ন প্রকার প্রকল্পের অধীনে ভিন্ন ভিন্ন পরিবার অনুদান দেওয়া হয়ে থাকে। তবে শুধু পশ্চিমবঙ্গ সরকার নয়, ভারতের কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকেও সমগ্র দেশের সাধারণ মানুষের বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহায়তার খাতিরে নানা প্রকার যোজনার অধীনে অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে। এরকমই ৫ টি বিশেষ প্রকল্পের (WB Schemes) অধীনে এই সেপ্টেম্বর মাসে টাকা পেতে চলেছেন সমগ্র পশ্চিমবঙ্গের জনসাধারণ। কিন্তু অধিকাংশ মানুষই সঠিকভাবে জানেন না ঠিক কোন কোন প্রকল্পের অধীনে তারা এই সেপ্টেম্বর মাসে টাকা পেতে চলেছেন। আর তাই আজ আমরা সাধারন মানুষের সাহায্যার্থে এই পোস্টে আপনারা চলতি মাসে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাসে কোন ৫ টি প্রকল্পের টাকা পেতে চলেছেন তা নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি।

• চলুন তবে দেখে নেওয়া যাক কোন ৫ টি প্রকল্পে (WB Schemes) এই সেপ্টেম্বর মাসে টাকা পেতে চলেছেন পশ্চিমবঙ্গের জনগণ ?
১. কিষাণ ক্রেডিট কার্ড:- পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে কার্যকরী এই প্রকল্পের অধীনে কৃষকদের কৃষিক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন দ্রব্য কেনার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩,০০,০০০ টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়ে থাকে। যদিও এই টাকার পরিমাণ নির্ভর করছে আপনার জমির পরিমাণ এবং আপনার কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের ক্রেডিট লিমিটের পরিমাণের ওপর। ইতিপূর্বে বিগত মাসগুলিতে যারা কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের ঋণের জন্য আবেদন করেছিলেন তারা এই চলতি মাসে অর্থাৎ সেপ্টেম্বর মাসে সেই টাকা পেতে চলেছেন।

পুজো শেষ হলেই শুরু হবে প্রাথমিক নিয়োগ, বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ রাজ্য সরকারের, আবেদন যোগ্য কারা জেনে নিন

২. Paddy Purchase:- কৃষকরা যাতে ফসলের ন্যায্য মূল্য পায়, তার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে এই প্রকল্পটি কার্যকরী করা হয়েছে। এই প্রকল্পের অধীনে রাজ্য সরকারের তরফে কৃষকদের কাছ থেকে ন্যায্য মূল্যে ধান কিনে নেওয়া হয়। তবে ধান বিক্রি করে আপনি কতো টাকা পাবেন তা নির্ভর করছে আপনি কতো পরিমাণ ধান বিক্রি করছেন তার ওপরে। যেসকল কৃষকরা ইতিপূর্বে ধান বিক্রি করেছিলেন অথবা সেপ্টেম্বর মাসের শুরুতেই ধান বিক্রি করেছেন তারা চলতি মাসে অর্থাৎ এই সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই তাদের টাকা পেয়ে যাবেন।

৩. বাংলা শস্য বীমা:- বন্যা, খরা সহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে কৃষকদের ফসল নষ্ট হয়ে গেলে কৃষকরা যাতে ক্ষতির সম্মুখীন না হন, তার জন্য বাংলা শস্য বিমা প্রকল্প কার্যকরী করা হয়েছিলো। এই প্রকল্পের অধীনে যেসকল কৃষকরা আগে থেকেই তাদের ফসলের বীমা করিয়ে রাখবেন নানান প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে তাদের ফসল নষ্ট হয়ে গেলে ভর্তুকি পেয়ে থাকেন। যেসকল কৃষকরা ইতিপূর্বে খারিফ মরশুমে এবং রবি মরশুমে তাদের ফসল নষ্ট হওয়ার কারণে ভর্তুকির জন্য আবেদন করেছিলেন তারা এই সেপ্টেম্বর মাসে তাদের ভর্তুকির টাকা পেতে চলেছেন।

৪. কৃষকবন্ধু প্রকল্প:- কৃষকরা যাতে চাষবাসের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সার, বীজ, কীটনাশক, যন্ত্রপাতি সহ অন্যান্য জিনিসপত্র কিনতে পারেন তার জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে কৃষকদের কৃষকবন্ধু প্রকল্পের অধীনে ২০০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত অনুদান দেওয়া হয়ে থাকে। যেসকল কৃষকদের আবেদনের স্ট্যাটাস valid রয়েছে, তারা যদি এখনও পর্যন্ত টাকা না পেয়ে থাকেন, তবে তারা এই সেপ্টেম্বর মাসেই প্রকল্পের টাকা পাবেন।

৫. কৃষকবন্ধু প্রকল্প (ডেথ বেনিফিট):- কৃষকবন্ধু প্রকল্পের আওতায় থাকা ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী কোনো কৃষকের মৃত্যু হলে তার পরিবার অথবা তার আইনসম্মত উত্তরাধিকারীকে সর্বোচ্চ ২ লক্ষ টাকার সাহায্য প্রদান করা হয়ে থাকে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে। তবে এক্ষেত্রে মৃত কৃষকের আইনসম্মত উত্তরাধিকারীকে অবশ্যই কৃষকের মৃত্যুর তিন মাসের মধ্যে এই মৃত্যুজনিত সহায়তার জন্য আবেদন করতে হবে। যারা এই প্রকল্পের অধীনে সাহায্যের জন্য আবেদন করেছিলেন তারা এই সেপ্টেম্বর মাসেই সেই টাকা পেতে চলেছেন।

স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে উঠে এলো গুরুত্বপূর্ণ আপডেট, এখনই জেনে নিন

এইরকম আরও সরকারি প্রকল্প সংক্রান্ত নানান গুরুত্বপূর্ণ আপডেট পেতে আমাদের পেজটি ফলো করুন এবং নীচের ডানদিকের আইকনে ক্লিক করে আজই যুক্ত হোন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে